কক্সবাজারে ২৩ জন মালয়েশিয়াগামী রোহিঙ্গা আটক

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, নিউজ কক্সবাজার :   

কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ সড়কের দরিয়ানগর শুকনাছড়িতে মালয়েশিয়াগামী ২৩ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুকে উদ্ধার  করেছে স্থানীয়রা।

মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে শুকনাছড়ির সমুদ্র চর থেকে তাদের আটক করা হয়। স্থানীয় ইমাম হোসেন নামে এক যুবক মুঠোফোনে বিষয়টি জানিয়েছেন।

ইমাম হোসেন জানান, মেরিন ড্রাইভ সড়কে রাতের আঁধারে এক সঙ্গে বেশ কিছু নারী-পুরুষ ও শিশুকে দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। অনেকক্ষণ পর্যবেক্ষণ করার পর তাদেরকে রোহিঙ্গাকক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ সড়কের দরিয়ানগর শুকনাছড়িতে মালয়েশিয়াগামী ২৩ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুকে উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে ২৩ জনকে আটক করে।

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে শুকনাছড়ির সমুদ্র চর থেকে তাদের আটক করা হয়। স্থানীয় ইমাম হোসেন নামে এক যুবক মুঠোফোনে বিষয়টি জানিয়েছেন।

ইমাম হোসেন জানান, মেরিন ড্রাইভ সড়কে রাতের আঁধারে এক সঙ্গে বেশ কিছু নারী-পুরুষ ও শিশুকে দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। অনেকক্ষণ পর্যবেক্ষণ করার পর তাদেরকে রোহিঙ্গা হিসেবে সনাক্ত করা হয়। ততক্ষণে এসব লোকজন সমুদ্রের চরে গিয়ে অবস্থান নেয়। তাতে স্থানীয়দের ধারণা মতে, সবাই রোহিঙ্গা। তা নিশ্চিত হয়ে তাদেরকে আটকে রেখেছে স্থানীয় লোকজন।

ইমাম হোসেন আরো জানান, আটক রোহিঙ্গা সবাই উখিয়ার বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে পালিয়ে এসে সাগরপথে মালয়েশিয়া পাড়ি দেয়ার জন্য সেখানে এসেছে। তাদেরকে কয়েকজন দালাল নিয়ে এসেছে। তবে স্থানীয়দের উপস্থিতি টের পেয়ে দালালরা পালিয়ে গেছে। তবে এরই মধ্যে অধিকাংশ পুরুষেরা পালিয়েছে গেছে বলে জানা গেছে।

ততক্ষণে এসব লোকজন সমুদ্রের চরে গিয়ে অবস্থান নেয়। তাতে স্থানীয়দের ধারণা মতে, সবাই রোহিঙ্গা। তা নিশ্চিত হয়ে তাদেরকে আটকে রাখে স্থানীয় লোকজন।

ইমাম হোসেন আরো জানান, আটক রোহিঙ্গা সবাই উখিয়ার বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে পালিয়ে এসে সাগরপথে মালয়েশিয়া পাড়ি দেয়ার জন্য সেখানে এসেছে। তাদেরকে কয়েকজন দালাল নিয়ে এসেছে। তবে স্থানীয়দের উপস্থিতি টের পেয়ে দালালরা পালিয়ে গেছে। তবে এরই মধ্যে অধিকাংশ পুরুষেরা পালিয়েছে গেছে বলে জানা গেছে।

জানাগেছে, রাত ১০টার দিকে কক্সবাজার সদর মডেল থানার অপারেশন এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার মোহাম্মদ ইয়াছিনের নেতৃত্বে এসআই প্রদীপ চন্দ্র দে সঙ্গীয়ফোর্স নিয়ে শহরের ১২নং ওয়ার্ডের শুকনাছড়িস্থ বার্মাইয়াপাড়ার প্রকাশ খলিফার বাসা থেকে ২৩ রোহিঙ্গা নারী, শিশু ও পুরুষকে আটক করতে সক্ষম হয়।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি খন্দকার ফরিদ উদ্দিন খন্দকার পিপিএম জানান,পাচারের প্রস্তুতির উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া রোহিঙ্গাদের স্থানীয়দের সহযোগীতায় উদ্ধার করা হয়। তাদের বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং পাচারে জড়িত স্থানীয় দালালদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য দিন