কক্সবাজার টুডে’এ প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ

বার্তা পরিবেশকঃ- 

আজ ২৭ অক্টোবর (রবিবার) কক্সবাজার টুডে’তে “টেকনাফ সদর ৮ নং ওয়ার্ডের ইয়াবা গডফাদাররা এখনো অধরা: পর্ব-১” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদের একাংশে আমার নাম উল্লেখ করে প্রচার করা তথ্যগুলো ডাহা মিথ্যা হওয়ায় সেসব অংশের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি ।

প্রতিবেদনটি মনোযোগ দিয়ে পড়েছি, এটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বলা হলেও কল্পনাপ্রসূত গল্প ছাড়া আর কিছুই নয়। কারণ আমাদের গ্রামটি নাফ নদীর তীরে অবস্থিত এটা ঠিক, তবে গ্রামের কর্মজীবী সকল মানুষ পেশাগত চোরাকারবারী এটা সঠিক নয়। কারা চোরাকারবারি ও মাদক কারবারি এটা প্রশাসন ভালো করেই জানে। এখানে মাদকের ছোবল পড়েছে একযুগও হইনি, কিন্তু গ্রামে আমার মত আরও অনেকে আছে পৈত্রিক সম্পদ ও বৈধ ব্যবসা করে সচ্ছলভাবে পরিবার চালাচ্ছেন আরো কয়েক যুগ আগে থেকে ।

সংবাদের মধ্যখানে অনুসন্ধানের তথ্য উল্লেখ করে আমার নাম জড়ানো হয়েছে, প্রতিবেদক এবং পত্রিকাটির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে চ্যালেঞ্জ করে বলছি আমি মোঃজিয়া ২০০০ সাল থেকে মায়ানমার থেকে বৈধ পথে গবাদীপশু (গরু) এদেশে এনে বাংলাদেশ সরকারকে কর প্রদানের মাধ্যমে ব্যবসা করে আসছি।

দীর্ঘ ১৯ বছরের ব্যবসায়িক জীবনে কারো সাথে আমার ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব নাই। সৎ ব্যবসায়ী হিসেবে সব মহলে পরিচিত। ব্যবসার পাশাপাশি এলাকার বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি। স্কুল, মসজিদ এবং মাদ্রাসার কল্যাণে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছি। ছোটবেলা থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রাজনীতির সাথে নিজেকে জড়িত রেখেছি। আমার বিরুদ্ধে কোন মামলা তো দূরে থাক একটি অভিযোগও নেই।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযানে শীর্ষ গডফাদার এবং আমার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য এনাম মেম্বার আত্মসমর্পণ করেন৷ তার অবর্তমানে এলাকায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার চাল-ডাল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস তৎকালীন জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদির নির্দেশে বিতরণ করি যা সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে।

৮ নম্বর ওয়ার্ডকে মাদকমুক্ত করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছি যা মাদক কারবারিদের অসুবিধার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এর পর থেকে আমি এবং আমার পরিবারকে জড়িয়ে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে ৷ যার ঢাল হিসেবে মিডিয়ায় কর্মরত কিছু সংবাদকর্মীদের ভুল তথ্য দিয়ে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমি যদি প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম ধ্বংসকারী ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত থাকতাম তাহলে এলাকায় সম্মানের সহিত বসবাস করতে পারতাম না। প্রতিনিয়ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সামনে থেকে যাতায়াত করছি যা একজন প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ীর পক্ষে কখনো সম্ভব নয়।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি ৮ নাম্বার ওয়ার্ড থেকে ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী। এমতাবস্থায় আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে৷ যাতে তারা কখনো সফল হবে না। আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস আছে৷

জাতির বিবেক সংবাদকর্মী ভাইদের বিনয়ের সহিত অনুরোধ করবো কাউকে সংবাদের শিরোনাম করার আগে তার সম্পর্কে সরেজমিনে পরিদর্শন মূলক তথ্য সংগ্রহ করে তার বক্তব্য নিয়ে সঠিক তথ্য জাতির সামনে উপস্থাপনের জন্য। আপনাদের একটি ভুল তথ্য একটি পরিবারে নেমে আসতে পারে অন্ধকার কাল রাত।

সমাজের একটি কুচক্রী মহল আমাকে হেয়প্রতিপন্ন ও রাজনৈতিক এবং ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে প্রতিবেদকের কাছে ভুয়া তথ্য প্রদান করেছে। প্রতিবেদক সংবাদের তথ্য উপাত্ত সঠিকভাবে সংগ্রহ না করেই সংবাদ তৈরি করেছেন আমি এই মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদের প্রতিবাদ জানাই।

তাই দেশে কর্মরত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সকল বিভাগকে প্রতিবেদনের তথ্যগুলো তদন্ত ও এসব অপপ্রচারে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে বিভ্রান্ত না হতে সবিনয় অনুরোধ জানাচ্ছি। কক্সবাজারের টুডে পত্রিকা কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ আমার বিরুদ্ধে মানহানিকর মিথ্যা অভিযোগের বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দিন, অন্যথায় প্রেস আইনসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট আইনে আপনাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হব।

প্রতিবাদকারী,
মোঃ জিয়া
পিতাঃ মৃত এরশাদ উল্লাহ
মাতাঃমৃত আনোয়ারা বেগম
বড় হাবির পাড়া, ৮নং ওয়ার্ড, টেকনাফ। 

 

আপনার মন্তব্য দিন