টেকনাফে বন্দুক যুদ্ধে ইয়াবা কারবারী ইব্রাহীম নিহত : অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার, আহত ৩

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, নিউজ কক্সবাজার :  

কক্সবাজারের  টেকনাফে কথিত বন্দুক যুদ্ধে শাহপরীর দ্বীপের ইয়াবা কারবারী ইব্রাহীম নিহত হয়েছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে ৩টি দেশীয় অস্ত্র, ৫ হাজার পিছ ইয়াবা ও কার্তুজ । আহত হয়েছে ৩ পুলিশ সদস্য।

১৭ মে শুক্রবার দিনগত মধ্যরাতে সাবরাং ইউপিস্থ শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিম পাড়া ফিশিং বোটের ঘাটের উত্তর দিকে ঝাউ বাগানের পাশে বালুর মাঠে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।

এঘটনায় নিহত ইব্রাহীম শাহপরীর দ্বীপ দক্ষিণ পাড়া এলাকার নুরুল আমিন বল্লার ছেলে।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ  (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, এর আগে আটক ইব্রাহীমকে নিয়ে মাদক উদ্ধারে গেলে শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিম পাড়া ফিশিং বোটের ঘাটের উত্তর দিকে ঝাউ বাগানের পাশে বালুর মাঠে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা তার অন্যান্য সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে।

এসময় পুলিশও আত্মরক্ষার্তে পাল্টা গুলি বর্ষণ করে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়  ৩টি দেশীয় তৈরী এলজি, কার্তুজ-১১ রাউন্ড, খোসা- ১৩ রাউন্ড ও ৫ হাজার পিস ইয়াবা। গুলাগুলির ঘটনায় আহত হয়েছেন এসআই দিপক কনস্টেবল শাকিল ও দিলু।

তিনি আরো জানান, গুলাগুলি থামলে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ  ইব্রাহীমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।  তার মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। সে একজন মাদক কারবারী বলেও পুলিশ জানায়।

এদিকে, নিহত মো. ইব্রাহীম একজন টপ লিষ্টেড ইয়াবা ব্যবসায়ী। ইয়াবা পাচারের গডফাদার। সে পুলিশের কাছে নিজে স্বীকার করেছে কিভাবে লাখ লাখ ইয়াবা আনতো। ২০১২ সাল থেকে এই পর্যন্ত টেকনাফ থানার একাধিক মামলায় সে এজাহার নামীয় আসামী। এই কারবারী টেকনাফ থানাসহ বিভিন্ন সংস্থার তালিকাভূক্ত। যার মধ্যে টেকনাফ থানার তালিকা নং-৬২১, মাদক ব্যবসায়ী ও গডফাদার তালিকা নং-৫০৪, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় তালিকা নং-৪৫২, ডিআইজি অফিস তালিকা নং-৬২১, এনফোর্সমেন্ট ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় তালিকা নং-৪৫২ এবং মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর তালিকা নং-৪৮৬। পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে কুখ্যাত এই ইয়াবা কারবারী নিহত হওয়ার খবর স্বস্থিদায়ক।

বাকী গডফাদাররাও কোনভাবে রেহাই পাবেনা। তারাও জালে আটকা পড়বে। সংশ্লিষ্ট সূত্র তাই নিশ্চিত করেছে। ইয়াবা নির্মূলে জেলা পুলিশের এই ধারাবাহিক অভিযান প্রশংসার দাবী রাখে। কক্সবাজারের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের প্রত্যাশা ইয়াবা তথা মাদকের ভয়াবহতা রোধে পুলিশের এই অভিযান আগামী দিনে অব্যাহত থাকবে।

আপনার মন্তব্য দিন