টেকনাফে মাদকাসক্ত ছেলের হাতে পিতা খুন

ইমদাদুল ইসলাম জিহাদী,  ক্রাইম রিপোর্টার :    

মাদকাসক্ত ছেলের আঘাতে নির্মমভাবে খুন হয়েছে জন্মদাতা  বাবা। টেকনাফ পৌরসভার ইসলামাবাদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত হাকিম আলী পেশায় একজন লন্ড্রি ব্যবসায়ী।

১৩ জুন বৃহস্পতিবার  রাত ১টার দিকে হাকিম আলি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। গত ২২ এপ্রিল বাবাকে হামলার ঘটনায় আটক ছেলেকে ১ বছরের সাজা দেন ভ্রাম্যমান আদালত। বর্তমানে ঘাতক ছেলে কারাগারে আছেন।

এলাকাবাসী ও বিভিন্ন সুত্রে জানা যায়, হাকিম আলীর ছেলে রহিমুস সাদেক (২২) একজন মাদকাসক্ত।

গত ২২ এপ্রিল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত অবস্থায় মাদকাসক্ত ছেলে রহিমুস সাদেক (২২) মাদকের টাকার জন্য বাবার সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে বাবাকে  মারধর ছাড়াও ধাক্কা দিলে পাকা পিলারের সাথে মাথায় আঘাত লেগে রক্তাক্ত হন। এসময় পার্শ্ববর্তী ব্যবসায়ীরা আহত বাবাকে হাসপাতালে ভর্তী করেন।

চিকিৎসা শেষে হাকিম আলি বাড়ী ফিরলেও তিনি আর সুস্থ্য হতে পারেননি। মাথার আঘাতে অসুস্থতায় ভোগে শেষ পর্যন্ত ১৩ জুন ভোররাত ১টার দিকে তিনি মারা যান।

এদিকে,বাবাকে হামলাকারী ছেলেকে সেই সময় (২২ এপ্রিল)  আশপাশের ব্যবসায়ীরা আটক করে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে নিয়ে যান। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে মাদকাসক্ত ছেলে সাদেককে ১ বছরের সাজা দিয়ে কারাগারে প্রেরন করেন। বর্তমানেও কারাগারে আছেন ছেলে সাদেক।

এলাকাবাসী জানান, নিহত হাকিম আলি তার ছেলেকে একটি কম্পিউটার কিনে দিয়েছিলেন উপার্জনের জন্য। কিন্তু ছেলে সাদেক প্রায় মাদকের টাকার জন্য বাবাকে অত্যাচার করতেন। শেষে মাদকাসক্তির কারনে ছেলের হাতে প্রাণ হারাতে হলো জন্মদাতা বাবাকে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,নিহত হাকিম আলি একজন পুরনো রোহিঙ্গা। মিয়ানমার থেকে এসে টেকনাফে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর ২ ছেলে ৩ মেয়ে নিয়ে টেকনাফ পুরাতন পল্লান পাড়ায় স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন।

 

আপনার মন্তব্য দিন