টেকনাফে সাড়ে ৩৬ কোটি টাকার মাদক ও চোরাই পন্য জব্দ

স্টাফ রিপোর্টার, টেকনাফ :

মাদক নির্মূলে সরকারের জিরো ট্রলারেন্স নীতি অনুসরনের পরেও এই পর্যন্ত কক্সবাজার জেলা ব্যাপী কথিত বন্ধুক যুদ্ধে অন্তত অর্ধশতাধিক ব্যক্তির নিহত হয়েছে।মৃত্যুর কাফেলা দীর্ঘ হওয়ার পরেও গেলো মার্চ মাসে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটেলিয়ন ৩৫ কোটি ৪৪ লক্ষ ৩০ হাজার ৭৫০ টাকার মাদক ও বিভিন্ন প্রকার চোরাই পণ্য আটক করেছে।

এই সংক্রান্ত ঘটনায় ২৭টি মামলায় আটক করা হয়েছে ১৩ জন।নিহত হয়েছে নারী সহ ৬ ব্যক্তি।

২ বিজিবি উপ-অধিনায়ক মেজর শরিফুল ইসলাম জোমাদ্দার জানান,সীমান্তের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে বিজিবি জওয়ানরা গত মার্চ মাসে ৩৫ কোটি ২০ লাখ ৬ হাজার ২০০ টাকা মূল্যের ১১লাখ ৭৩ হাজার ৩৫৪ পিছ ইয়াবা বড়ি আটক করেছে।তৎমধ্যে মালিক বিহীন ৮লাখ ৫১ হাজার ৫৭৩ পিচ ও মালিক সহ ৩ লাখ ২১ হাজার ৭৮১ পিছ।এসংক্রান্ত ঘটনায় ২০টি মামলায় ১২ জন আটক এবং বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে ১ নারী সহ ৬জন ব্যক্তি।

অপরদিকে,২৩ বোতল বিদেশী মদ,২৮০ ক্যান বিয়ার, ৫০ বোতল ফেন্সিডিল,সাঁড়ে চার কেজি গাঁজা জব্দ করা হয়েছে।জব্দকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ১লাখ ৪৫ হাজার ২৫০ টাকা।এই সংক্রান্ত ঘটনায় ৩টি মামলায় আটক করা হয়েছে ১ ব্যক্তিকে। তাছাড়া,২২লক্ষ ৭৯ হাজার ৩০০ টাকা মূল্যের আমদানী নিষিদ্ধ বিভিন্ন চোরাই পণ্য জব্দ করা হয়েছে।এই ঘটনায় ৪টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে সীমান্তে মাদক নিয়ন্ত্রনে যতো কড়াকড়ি বাড়ছে ততো মাদক আমদানী পাল্লা দিয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে।ফলে মাদক নির্মূলে স্থানীয়দের মাঝে চরম উদ্ধেগ দেখা দিয়েছে।

আপনার মন্তব্য দিন