টেকনাফ বিজিবির অভিযানে অস্ত্রসহ তিন রোহিঙ্গা আটক

আবদুল করিম, স্পেশাল করেসপনডেন্ট :

কক্সবাজারের টেকনাফে অস্ত্রসহ তিনজন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বিকালে টেকনাফস্থ দুই নম্বর বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান এ তথ্য জানান।

আটককৃতরা হলেন- হ্নীলা নয়াপাড়া ২৬ নাম্বার রোহিঙ্গা শিবিরের সি-ব্লকের দুই নম্বর বাড়ির মো. জুবাইরের ছেলে নুর কামাল (১৬), একই শিবিরের পাঁচ নম্বর বাড়ির আব্দুর রহমানের ছেলে সোলতান রহমান (১৯) ও ৮২৪ নম্বর বাড়ির মোহাম্মদ আলমের ছেলে মো. আয়াস (১৮)।

ফয়সল হাসান খান বলেন, টেকনাফের হ্নীলা নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের এইচ ব্লকে একটি সংঘবদ্ধ ডাকাতদল আগ্নেয়াস্ত্রসহ ডাকাতি করার গোপন সংবাদে নয়াপাড়া বিশেষ ক্যাম্পের একটি বিশেষ টহলদল সেখানে অভিযান চালায়। অভিযানে ওই ব্লকের রাস্তায় অস্ত্রসহ তিন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র ও একটি খেলনা পিস্তল উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, ইতোমধ্যেই রোহিঙ্গা শিবিরকে ঘিরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বাড়ছে। তবে রোহিঙ্গা শিবিরসমূহে বিজিবির তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। ফলে অস্ত্রসহ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের আটক করতে সক্ষম হয়েছে বিজিবি। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে আইনশৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি নিরাপত্তা বাহিনী তৎপর রয়েছে। এছাড়া অস্ত্রসহ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী আটকের ঘটনায় শীর্ষ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের বিষয়ে থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করা হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। এ সময় মামলার অধিকতর তদন্তের বিষয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ইতোমধ্যেই আলাপ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে রোহিঙ্গা শিবির ঘিরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাওয়ায় স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

উল্লেখ, দুই দিনের ব্যবধানে অস্ত্রসহ ৫ রোহিঙ্গা আটক করেছে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী। এর আগে মঙ্গলবার (৯ জুলাই) টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের পশ্চিম লেদার শিয়াইল্যাঘোনায় অবৈধ অস্ত্র নিয়ে ঘোরাফেরা করার সময় তিন রোহিঙ্গা যুবককে আটক করে পুলিশ।

আপনার মন্তব্য দিন