দৈনিক কক্সবাজার বাণী পত্রিকাসহ বিভিন্ন অনলাইনে হয়রানীমুলক সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা

দৈনিক কক্সবাজার বাণী পত্রিকার শেষ পৃষ্টায় সহ বিভিন্ন অনলাইনে গত ৯ নভেম্বর ‘ বসত বাড়িতে আগুন দিয়েছে ছোট ভাই’ ও ছোট ভাইয়ের হয়রানীতে বড় ভাই’ সহ বিভিন্ন শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদগুলো আমরা নিম্ন স্বাক্ষরকারীগণের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদগুলোর উল্লেখিত ঘটনা পুরোপুরি গায়েবী, মিথ্যা ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমাদের পৈত্রিক জমা জমা সংক্রান্ত বিরোধকে পুজি করে দৈনিক কক্সবাজার বাণী পত্রিকা কর্তৃপক্ষ বার বার নিজেদের ফায়দা হাসিলের জন্য সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে সমাজে আমাদেরকে হেয়প্রতিপন্ন করতে এধরনের হয়রানীমুলক, গায়েরী ও প্রতারণা মুলক সংবাদ প্রকাশ করে আসছে। আমরা এসব গায়েবী

সংবাদগুলোর তীব্র প্রতিবাদের পাশাপাশি নিম্নে প্রকৃত রহস্য ও আসল ঘটনা আমরা তুলে ধরলাম।

সংবাদে উল্লেখিত নুরুল আজিম আমাদের বড় ভাই, সেটা ঠিক কথা। তার অত্যাচার আর হয়রানীর মুখে আমরা পুরো পরিবার টতস্থ, আতংকিত, উদ্বিগ্ন ও ক্ষতিগ্রস্ত । নুরুল আজিম বলপ্রয়োগ করে, বিভিন্ন সন্ত্রাসী বাহিনী ব্যবহার করে আমাদের প্রাপ্ত পৈত্রিক জমি দখল এবং আমাদেরকে সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের বিভিন্ন ভাবে মিথ্যা মামলায় জড়িত করে হয়রানী করে আসছে।

আমি লুৎফুর রহমান একজন কুয়েত প্রবাসী। আমি গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে প্রবাস জীবনে আসি। প্রতি বছর প্রবাস থেকে দেশে বিপুল পরিমাণ রেমিটেন্স পাঠাচ্ছি। মাথার ঘাম পায়ে ফেলে কষ্টে অর্জিত অর্থ দেশে পাঠিয়ে জাতীয় রাজস্ব আয়ে ভুমিকা রাখছি।

সম্প্রতি আমি ছুঠিতে দেশে আসার পর আমি সহ আমার অপরাপর ভাই জাহাংগীর আলম (প্রবাসী) , শাহজাহান চৌধুরী শাহীন (সাংবাদিক) ও সেলিমুল হক (ব্যবসায়ী) মিলে পৈত্রিক জমিতে গত ২০১৪ সালে নির্মিত দোকানঘর সংস্কার করাকালীন উক্ত নুরুল আজিম তার সন্ত্রাসী দলবল নিয়ে আমাদের দোকান ঘর সংস্কারে বাধা প্রদান করে এবং ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেন। চাঁদা দিকে অস্বীকৃতি জানানোর কারণে এই নুরুল আজিম সহ অন্যান্যরা দোকানঘর দখলের চেষ্টা চালায়। ব্যর্থ হয়ে আমাদের ভাতিজা ইসলামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফয়সাল আজিমের উপর হামলা করে। এঘটনায় আহত ফয়সালের পিতা ফরিদুল আজিম (দাদা ফরিদ) বাদী হয়ে নুরুল আজিম সহ তার সাঙ্গদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-১১৫, জিআর-৮০১/১৮ দায়ের করেন।

এই নুরুল আজিমসহ তার সাঙ্গরা মামলা হতে জামিন নিয়ে আবার বেপরোয়া হয়ে যায়। আমাদের দোকানঘর দখল করার জন্য ও হয়রানী করার উদ্দেশ্যে আমি সহ আমার দুই ভাই, ভাতিজা ও বোন বিধাব খুরশিদা বেগম পাখির বিরুদ্ধে নুরুল আজিম বাদী হয়ে গত ৩০ সেপ্টেম্বর চকরিয়া থানায় গায়েবী ও মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে চকরিয়া থানা পুলিশের তদন্ত কালে পুরো ঘটনা মিথ্যা প্রমাণিত হয়। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে আমাদেরকে হয়রানীর মাত্রা আরো বাড়ানোসহ হয়রানী করার নতুন ফন্দি আটে।

আমারা ভাই ও বোনেরা পৈত্রিক সুত্রে প্রাপ্ত জমি নুরুল আজিম বলপ্রয়োগের মাধ্যমে দখল করে রাখার বিষয় কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মাহমুদুল করিম মাদুর নিকট বিচারাধীন। গত সপ্তাহে জমিজমার বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য উভয় পক্ষ বিজ্ঞ আইনজীবি নিয়োগ করার পর বিচারক মাহমুদুল করিম মাদুর ও বিচারকের নিযুক্ত বিজ্ঞ আইনজীবী মোহাম্মদ বাকের এর নিকট আমরা স্ব-স্ব দলিলপত্রাদি ও বক্তব্য উপস্থান করা হয়।

বিজ্ঞ আইনজীবী-মোহাম্মদ বাকের আমরা উভয় পক্ষের দলিল পত্রাদি পর্যালোচনা করে একটি আইনগত মতামত প্রদান করেন এবং পৈত্রিক জমিগুলো ভাগবন্টনের আইনগত মতামত দেন। কিন্তু এই আইনগত মতামতও মানতে নারাজ নুরুল আজিম। এরপর থেকে এই নুরুল আজিম আমাদের প্রাপ্য জমিগুলোর দখল ছেড়ে না দিয়ে উল্টো দৈনিক কক্সবাজার বাণীকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে একের পর এক কল্পকাহিনী সাজিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রচার ও মিথ্যা মামলায় জড়ানোর কুটকৌশল অবলম্বন করে খড়ে আগুন দেয়ার মতো উদ্ভট ঘটনার অবতারণা করে।

আসলে খড়ে মধ্যে কেন আগুন দেয়া হবে, এধরনের কোন ঘটনা না ঘটারপরেও দৈনিক কক্সবাজার বাণী, সহ কয়েকটি অনলাইনে কোন স্বার্থে এধরনের কল্পকাহিনী সাজিয়েছে, আমাদের বোধগম্য নয়।

আমি লুৎফুর রহমান (কুয়েত প্রবাসী) কে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী ও হামলার হুমকিসহ প্রাণনাশ করার হুমকির দেয়ায় আমি চকরিয়া থানায় নুরুল আজিমের বিরুদ্ধে (চকরিয়া জিডি নং-১০৩/১৮) জিডি লিপিবদ্ধ করেছি।

আমরা বুকে সাহস নিয়ে বলতে চাই, নুরুল আজিম একজন পেশাদার অপরাধী। নিজেকে ভাল মানুষ সাজার জন্য কখনো কখনো স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অধীনে ভুয়া কর্মচারীর পরিচয় ও গণমাধ্যমকর্মী পরিচয় দিয়ে দাপট দেখান। আসলে সে একজন ইয়াবা ব্যবসায়ী, মানবপাচারসহ বিভিন্ন ফোজদারী অপরাধের সাথে জড়িত রয়েছে। নুরুল আজিম (পিতা-হাজী ইসহাক সওদাগর) এর বিরুদ্ধে উখিয়া থানার মামলা নং-২০, জিআর-৬০/১৫ রয়েছে। উক্ত মামলাটি দীর্ঘদিন অর্গানাইজ ক্রাইম সিরিয়াস ক্রাইম স্কোয়ার্ড (সিআইডি) এর সাব ইন্সপেক্টর রিপন চন্দ্র সরকার গত ২৪/০৭/২০১৫ইং উক্ত মানবপাচারকারী নুরুল আজিম সহ অন্যান্য সিন্ডিকেট সদস্যদের বিরুদ্ধে আদালতে দায়েরকৃত অভিযোগপত্র নং-২০১, ধারা-মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন ২০১২ এর ৭/৮ দায়ের করেন, চকরিয়া থানার মামলা নং-৫৩, জিআর-৬৪৯/১৪, কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-৩৪, জিআর-৫৯৩/১৭ রয়েছে।

এছাড়াও গত ২০১৭ সালে ২৩ মার্চ ইয়াবা ব্যবসায়ি নুরুল আজিমসহ অন্যান্যরা চিরিংগা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সার্জেন্ট মো. মহিদুল ইসলামের উপর হামলা চালায়, গাড়ি ভাংচুর করে। এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে চকরিয়া থানার মামলা নং-৩৩, জিআর-১৪৮/১৭ দায়ের করেন। নুরুল আজিম সহ তার বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র নং-৩৬৭ দায়ের কওে পুলিশ। নুরুল আজিমের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-১১৫,জিআর- ৮০১/১৮ সহ আরো অসংখ্য মামলা রয়েছে। এরপরেও নুরুল আজিম নিজেকে ভালো মানুষ দাবী করে।

আমরা এই নুরুল আজিমের অত্যাচারে পুরো পরিবারের সদস্যরা অতিষ্ট হয়ে আছি। আমাদেরকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী অব্যাহত রেখেছে। আমরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনার পাশাপাশি এধরনের গায়েবী, মিথ্যা কাল্পনিক ও বানোয়াট সংবাদ থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি। অন্যতায় আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব।

প্রতিবাদকারী-
লুৎফুর রহমান (প্রবাসী),
খুরশিদা বেগম (বিধাব)।
পিতা- মরহুম হাজী ইসহাক সওদাগর।
মধ্যম নাপিতখালী, ইসলামপুর, কক্সবাজার সদর।

আপনার মন্তব্য দিন