পেকুয়ায় কৃষক খুন মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানার আসামী মেহের আলী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী !

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, নিউজ কক্সবাজার.কম :

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে  চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১২ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করেছে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ বশির আহমদ।২৮ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় জেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়ন পত্র যাচাই বাচাই কার্যক্রম সম্পন্ন হয়।

বৈধ মনোনয়ন পত্রের চেয়ারম্যান পদে-নৌকার প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, স্বতন্ত্র প্রার্থীরা  উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আললম, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য এসএম গিয়াস উদ্দিন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল শামা শামীম। বাতিল করা হয়েছে- আমির আশরাফ রুবেলের মনোনয়ন পত্র।
ভাইস-চেয়ারম্যান পুরুষ পদে সাজ্জাদুল ইসলাম, মেহেদী হাসান ফরায়েজী, মেহের আলী, মোঃ কায়সার ও আজিজুল হকের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করা হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে- নুর মুহাম্মদ ও নাসির উদ্দিনের মনোনয়ন পত্র।
ভাইস-চেয়ারম্যান মহিলা পদে উম্মে কুলসুম মিনু, হাসিনা বেগম ও নাসরিন ফারজানার মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করা হয়েছে।

কৃষক খুন মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানার আসামী মেহের আলী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী !

এদিকে, ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন কৃষককে খুনের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার চার্জসীটভুক্ত ও গ্রেফতারী পরোয়ানার আসামী ( পুলিশের খাতায় পলাতক) মেহের আলীকে নিয়ে পুরো পেকুয়া উপজেলায় বির্তকের সৃষ্টি হয়েছে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, পেকুয়া উপজেলার জালিয়াখালী গ্রামের দিশা মিয়ার ছেলে মেহের আলী খুন মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানার আসামী হয়েও গত ২৬ ফেব্রুয়ারী পেকুয়া উপজেলা পরিষদে পুলিশের সামনেই প্রকাশ্যে ভাইস চেয়ারম্যান পদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর আগে এলাকার বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে জনসংযোগ ও পুলিশের নাকের ডগায় ঘুরাফেরা করলেও পেকুয়া থানা পুলিশ রহস্যজনক কারণে তাকে গ্রেফতার করছেন না।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২৮ ফেব্রুয়রী ছিলো মনোনয়নপত্র ঝাচাই বাছাই। এই বাছাই অনুষ্টানেও উপস্থিত ছিলেন গ্রেফতারি পরোয়াভুক্ত আসামী মেহের আলী। এছাড়াও জনৈক আওয়ামী লীগ নেতার আশ্রয়পশ্রয়ে মেহের আলী বেপরোয়া হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

দীর্ঘ১২ বছর পূর্বে একই এলাকার অসহায় কৃষক আহম্মদ ছবিকে হত্যা করেন। এই মেহের আলীর বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় নিয়মিত হত্যা মামলা দায়ের করা হয় এবং পুলিশ তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আদালত যথারীতি মেহের আলীর বিরুদ্ধে

পেকুয়া থানার ওসি’র পারিবারিক অনুষ্ঠানে হত্যা মামলার পলাতক আসামী মেহের আলী !

 

২ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম শহরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে দুই ছেলের খৎনা অনুষ্ঠান করেছেন পেকুয়া থানার ওসি জাকির হোসেন ভুইয়া । আর সেই উৎসবের আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন তাঁরই থানার হত্যা মামলার পলাতক আসামী মেহের আলী ।

আর আনন্দঘন সেই মুহুর্তের একটি যুগল সেলফি ফেসবুকে আপলোডও করেছেন দীর্ঘ এক যুগ ধরে পুলিশের খাতায় পলাতক থাকা মেহের আলী।

পেকুয়া থানা ও আদালত সূত্র জানায়, ২০০৬ সালে ১৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের জালিয়াখালী গ্রামে মোহাম্মদ ছবি নামক এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। সেদিন রাতেই ওই ঘঁনার নিহতের বড় ছেলে জকির আলম বাদী হয়ে  মেহের আলীসহ ৩২ জনকে এজাহার নামীয় আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

পরে ৩২ জনের বিরুদ্ধেই আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। কিন্তু পরবর্তীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সুপারিশে ৫ জন ওই মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেও মেহের আলী সহ ২৭ জনের বিরুদ্ধে  আদালতে চার্জ গঠন করে। বর্তমানে ওই মামলাটি স্বাক্ষী শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে।

মামলার বাদী জকির আলম বলেন, জায়গা জমির বিরোধের জেরে দিশা মিয়ার ছেলে মেহের আলী সহ ৩২ জনের সংঘবদ্ধদল আমার বাবাকে গুলি করে হত্যা করে। ওই ঘটনায় পেকুয়া থানায় জিআর ৫/০৬ মামলাটির দায়ের করি। ঘটনার এক মাসের মধ্যে মেহের আলী সৌদি আরবে পাড়ি জমায়। তিনি দীর্ঘদিন সৌদি আরবে ছিলেন।

২০১৮ সালের নভেম্বরে তিনি আবারো পেকুয়ায় ফিরে আসেন। এরিমধ্যে আদালত থেকে তার বিরুদ্ধে কমপক্ষে ১০ বার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ও মাল ক্রোকের আদেশ দেন।

এ দিকে স্থানীয় সুত্র জানায়, মোহাম্মদ ছবি  হত্যা মামলার অন্যতম আসামী মেহেরআলী সম্প্রতি প্রবাস থেকে দেশে ফিরেছেন।  তার পৈত্রিক বাড়ি পেকুয়ায় সদর ইউনিয়নের জালিয়াখালীতে।

স্থানীয়রা জানায়, তিনি পেকুয়া সদরের কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের পূর্ব পার্শ্বে ডিসি সড়কে একটি অভিজাত বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন। সেখানে তার প্রথম স্ত্রী থাকেন। দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে চকরিয়ায় পৌর শহরে পৃথক বসবাস করছেন। মাঝে মধ্যে তাকে পেকুয়ায় দেখা যায়।

এদিকে  গ্রেফতার এড়াতে মেহের আলী ক্ষমতাসীন দলের রাজনৈতিক নেতা ও  প্রশাসনের কর্তাবাবুদের সাথে সুগভীর সম্পর্ক স্থাপন করেছেন। ক্ষমতাসীন দলীয় নেতাদের সামাজিক অনুষ্ঠানে উপস্থিতির পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তাঁর দেখা মিলছে।

সর্বশেষ ২ ফেব্রুয়ারি পেকুয়া থানার ওসির  দুই ছেলের খৎনা অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের হালিশহরে পিসি কনভেনশন হলেও উপস্থিত ছিলেন মেহের আলী। আর সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রশাসনের অনেক কর্তার সাথে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে দিয়েছেন তিনি। তবে মুঠোফোন বন্ধ থাকায় এ বিষয়ে মেহের আলীর বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।
কিন্তু পেকুয়া থানার ওসি জকির হোসেন ভুইয়া দাবী করেছেন মেহের আলীকে তিনি চিনেন না ও জানেন না।

আপনার মন্তব্য দিন