অঙ্গীকার ভঙ্গের অভিযোগ জাফর আহমদের বিরুদ্ধে

ছবিঃ চুক্তিনামা

বার্তা পরিবেশক। 

সাবরাং ইউনিয়নের কচুবনিয়া এলাকার মৃত্যু আবদুল মতলবের ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য জাফর আহমদের বিরুদ্ধে অঙ্গীকার ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় চলছে। 

এই প্রতিবেদকের হাতে আসা এক অঙ্গীকারনামা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ২০১৬ সালের মার্চ মাসের ৬ তারিখ বিকাল সাড়ে চার টায় কচুবনিয়া জামে মসজিদে এক অঙ্গীকারনামা সম্পন্ন হয়। যেখানে এলাকাবাসীর পক্ষে দুইটি পক্ষ একত্রিত হয়ে উক্ত অঙ্গীকারনামায় সাক্ষর করে। প্রথম পক্ষে সাবেক ইউপি সদস্য জাফর আহমদের নেতৃত্বে ৫ জন এবং দ্বিতীয় পক্ষে মৃত্যু ইউছুপ আলীর ছেলে সিদ্দিক আহমেদের নেতৃত্বে ৫ জন ছিলেন। 

অঙ্গীকারনামা অনুযায়ী ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে এলাকাবাসীর পক্ষে জাফর আহমদকে একক প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। সে লক্ষ্যে দুই পক্ষ একত্রিত হয়ে এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে জাফর আহমদকে ইউপি সদস্য নির্বাচিত করা হয়। 

ছবিঃ অঙ্গীকারনামা

শর্ত অনুযায়ী, পরবর্তী নির্বাচনে জাফর আহমদ দ্বিতীয় পক্ষের ৫ জন থেকে যেকোন একজনকে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবেন এবং তার পক্ষে নির্বাচন করবেন। দ্বিতীয় পক্ষ থেকে আর কেউ প্রার্থী না হওয়ায় সিদ্দিক আহমেদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার সিদ্ধান্ত নেন। অঙ্গীকার অনুযায়ী জাফর আহমেদের সিদ্দিক আহমেদকে সমর্থন করার কথা থাকলেও উল্টা তার বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণ করে নির্বাচন করে। এক এলাকা থেকে দুইজন প্রার্থী  প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার কারণে নির্বাচনে দুই প্রার্থিই পরাজিত হন। এই পরাজয়ের জন্য জাফর আহমদকে দায়ী করেন এলাকাবাসী। 

এছাড়া, ১৯ সেপ্টেম্বর নির্বাচনের একদিন আগে কচুবনিয়া এলাকার মৌলভী বশিরের বাড়ীতে এক বৈঠকে জাফর আহমদ বলেন, নির্বাচনের দিন সকালে তার কর্মী সমর্থকদের সিদ্দিক আহমদকে ভোট দেওয়ার অনুরোধ করবেন। কিন্থু সে প্রতিশ্রুতি ও ভঙ্গ করেন তিনি। 

এই বিষয়ে সিদ্দিক আহমদ জানান, জাফর একজন জাতীয় বেঈমান। সে মীরজাফরের মত কাজ করেছে। জামে মসজিদে শত শত লোকের সামনে দেওয়া ওয়াদা ভঙ্গ করেছে। এলাকাবাসী তার এই অপরাধ কখনো ক্ষমা করবে না। 

এদিকে এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জাফর আহমেদ বলেন, সিদ্দিকের সাথে আমি কোন চুক্তি বা অঙ্গিকার করিনাই। আমি অঙ্গিকার করেছি কবিরের সাথে। কবির নির্বাচন না করায় আমি নির্বাচন করেছি। এতে অসুবিধার কিছু দেখছিনা।

আপনার মন্তব্য দিন