উখিয়া ও টেকনাফের ১০০০ পরিবারকে ৪৬ লক্ষ টাকা প্রদান করেছে কোস্ট ট্রাস্ট

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

জার্মানভিত্তিক দাতা সংস্থা-মাল্টসার ইন্টারন্যাশনাল-এর অর্থায়নে কোস্ট ট্রাস্ট ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর হতে স্থানীয় জনগোষ্ঠির জন্য কোস্ট একর্ড নামক তিন বছর মেয়াদী একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর আগমনের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত উখিয়া উপজেলার পালংখালী এবং টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের স্থানীয় ১০০০ পরিবারের স্থায়িত্বশীল অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আনয়নের লক্ষ্যে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। উক্ত প্রকল্প ১,০০০ পরিবারের (পালংখালী ইউনিয়নের ৫১৫ পরিবারকে ৩৩ দলে এবং হ্নীলা ইউনিয়নের ৪৮৫ পরিবারকে ৩২ দলে ভাগ করে, মোট ৬৫ দলে) আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিভিন্ন আয়বর্ধনমূলক প্রশিক্ষণের পাশাপাশি দলভিত্তিক অর্থ সহায়তা প্রদান(ইনপুট সাপোর্ট) করে যাচ্ছে।

প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য হলো- ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠির কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে উপকারভোগীদের প্রকৃত আয় বৃদ্ধি করার মাধ্যমে মাথাপিছু দারিদ্রতা কমানো এবং উপকারভোগীদের মালিকানা ও ব্যবস্থাপনায় সমাজভিত্তিক ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচি পরিচালনা করার সক্ষমতা অর্জনে সহায়তা করা। এই প্রকল্পের আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে উপকারভোগীরা দল গঠনের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের আয় বর্ধনমূলক কাজের সাথে যুক্ত হয়ে কর্ম সংস্থানের সুযোগ তৈরি এবং সঞ্চয়ে সম্পৃক্ত হবে। দরিদ্র পরিবার সমূহের স্থায়িত্বশীল অর্থনৈতিক সক্ষমতা অর্জনের লক্ষ্যে আত্ম-নির্ভরশীল দলের সদস্যদের দলীয়ভাবে আর্থিক সহায়তা করা হচ্ছে যাতে প্রকল্পের উপকারভোগীগণ তাদের পরিকল্পিত পেশা বা ছোট ব্যবসা শুরু করতে পারে। এই আর্থিক সহায়তা প্রত্যেক দলের দলীয় ব্যাংক একাউন্টে, একাউন্ট পে-ই চেকের মাধ্যমে প্রদান করা হয়েছে। পাশাপাশি দরিদ্র পরিবার সমূহ নিজস্ব পরিকল্পনার মাধ্যমে আর্থিক কর্মকান্ডে যুক্ত হবে, কমিটি গঠন এবং নিজেরা ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

উপরোক্ত লক্ষ্যসমূহ অর্জনের লক্ষ্যে প্রকল্পের উপকারভোগীর (৬৫টি দলে) মধ্যে (প্রতিটি দলে এককালীন ৭১,২০০টাকা করে) মোট ৪৬ লক্ষ টাকা দলীয়ভাবে বন্টন করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় কয়েকটি ধাপে দুই ইউনিয়নে আত্মনির্ভরশীল দলের সদস্যদের জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়।
গত ৭ ও ১১ ফেব্রুয়ারী মোট ৪২ টি (পালংখালীতে ২২টি এবং হ্নীলায় ২০টি) দলে চেক প্রদান করা হয়।
পালংখালীতে চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উখিয়া উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো: বদরুল আলম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি সদস্যদেরকে ঘরমূখী না হয়ে পরিবারের আর্থিক অবদান রাখার জন্য উদ্যোক্তা হতে উৎসাহিত করেন।

তিনি বলেন, অধিকাংশ প্রকল্প স্বল্পমেয়াদী কিন্তু কোস্ট ট্রাস্ট একর্ড প্রকল্প তিন বছর মেয়াদী একটি দীর্ঘ প্রকল্প যেখানে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সুযোগ রয়েছে- তাই আমি বলবো আপনারা এ সুযোগ কে কাজে লাগান”।

সভাপতির বক্তব্যে পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, উখিয়া উপজেলায় কোস্ট ট্রাস্টের কার্যক্রম খুবই প্রশংসনীয়। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর আগমনের ফলে উখিয়ায় যে আর্থিক সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে তা লাঘবের লক্ষ্যে শুরু থেকে এ সংস্থাটি সমন্বিত ভাবে কাজ করে আসছে। উপস্থিত দলীয় সদস্যদের তিনি দলীয়ভাবে কাজ করে আয়বৃদ্ধির জন্য উৎসাহ প্রদান করেন।”

হ্নীলায় চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হ্নীল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী।
তিনি এই অর্থ সহায়তার মাধ্যমে উপকারভোগীদেরকে আয়বৃদ্ধিমূলক কাজের প্রতি মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি কৃষিকাজ ও গাভী পালনের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন হ্নীলা ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ফরিদা বেগম এবং নাছরিন পারভিন কবির, ৪ নং ওর্য়াডের সদস্য মো: হোসাইন আহমদ। এর আগে সেপ্টেম্বর ২০২০ এ কোস্ট একর্ড প্রকল্প আয়োজিত আত্মনির্ভরশীল দলে আর্থিক সহায়তা প্রদান উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ২৩ টি (পালংখালী-১১ টি এবং হ্নীলায় ১২ টি) দলকে এককালীন ৭১,২০০ টাকা প্রদান করা হয়।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা প্রসেনজিত তালুকদার।

সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- মোজাফফর আহমেদ (প্যানেল চেয়ারম্যান-২)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রাসেল চৌধুরী, রাশেদা বেগম (মেম্বার-৭,৮,৯ নং ওয়ার্ড), রিজিয়া বেগম (মেম্বার ১,৫,৬ নং ওয়ার্ড), কমরুদ্দিন মুকুল (সাধারন সম্পাদক- উখিয়া প্রেস ক্লাব) এবং উখিয়া প্রেস ক্লাব এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রফিক উদ্দিন বাবুল প্রমুখ।

প্রকল্প সমন্বয়কারী তাহরিমা আফরোজ শুরুতেই একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনীর মাধ্যমে প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পর্কে তুলে ধরেন এবং এ আর্থিক সহায়তার লক্ষ্য উদ্দেশ্য সম্পর্কে আরোচনা করেন।

আপনার মন্তব্য দিন