কক্সবাজারের প্রবীণ সাংবাদিক বকসী করোনায় মারা গেলেন ভারতের ভেলোর হাসপাতালে

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন।।

কক্সবাজারের প্রবীণ সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বকসী করোনা আক্রান্ত হয়ে ভারতের ভেলোর সিএমসি হাসপাতালে মারা গেছেন।
রোববার সকাল পৌনে ১০টার সময় ভারতের বেলোরোর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় জীবন যুদ্ধে হেরে যান প্রবীণ এই কলম যোদ্ধা।
সহধর্মিণী লুৎফা বকসীর চিকিৎসার জন্য গত ১৮ মার্চ ভারতে যান নজরুল ইসলাম বকসী। সেখানে গত ২৪ মার্চ থেকে নিজেই প্রচন্ড জ্বরসহ অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হন।
এরপর করোনার স্যাম্পল টেস্ট করালে রিপোর্ট ‘পজেটিভ’ আসে।
সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বকসীর শরীরে আগে থেকেই ওপেনহার্ট সার্জারী করা ছিলেন।
বাংলাদেশ বেতার কক্সবাজার স্টেশনের নিয়মিত খবর পাঠক, উপস্থাপক ও কক্সবাজার শহরের লিংকরোড মুহুরী পাড়ার বাসিন্দা নজরুল ইসলাম বকসীর আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন পরিবারের সদস্যরা।
উল্লেখ্য, ভারতের ভেলোর সিএমসি হাসপাতালে করোনা হাইভেন্টিলেশনে চিকিৎসাধীন ছিলেন নজরুল ইসলাম বকসী।
একই হাসপাতালে হেমাটলজী ক্যানসার বিভাগে কেমোথেরাপি নিচ্ছেন স্ত্রী লুৎফা বকসী।
ভারত মহাসাগরের অথৈ পাথারে মা বাবাকে বাঁচানোর আপ্রাণ প্রচেষ্টায় ছিলেন দুই সন্তান ভাষা ও বর্ণ।
আপ্রাণ প্রচেষ্টার পরও চিরতরে হারিয়ে গেলেন ভাষা ও বর্ণের পিতা নজরুল ইসলাম বকসী। এখন বেঁচে আছেন কেবল তাদের একমাত্র ভরসা মা লুৎফা বকসী।
ক্যান্সার আক্রান্ত স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে কক্সবাজার থেকে ভারতে গিয়েছিলেন। সেখানে নিজেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। সাংবাদিক বকসীর স্ত্রীকে প্রথম দফা ক্যামথেরাপী শেষে গত শনিবার রাতে হাসপাতাল থেকে নিয়ে গেছে। ২১ দিন পর আবার শুরু করবে ক্যামোথেরাপী। তবে তার শরীরের অবস্থাও নাজুক,। তাকে এখনো জানে না যে বকসী ভাই মারা গেছে।
তাঁর ছেলের সাথে শেষ কথা হয় গত শনিবার রাতে। হাসপাতালের খাবার ভালো লাগছিলো না বলে খাবার নিয়ে যেতে বলেছিলো ছেলেকে। কিন্তু খাবারও আর খাওয়া হয়নি।
সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বকসীর মরদেহ কক্সবাজারে আনা হবে না। সেখানে (ভেলোতে) কবর দেয়া হবে তাকে।

 

আপনার মন্তব্য দিন