কক্সবাজারে বিজিবির শতকোটি টাকার মানহানি মামলায় নারী এনজিও কর্মীর জামিন

ধর্ষণের অভিযোগকারী এনজিওকর্মী

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, নিউজ কক্সবাজার :

কক্সবাজারের টেকনাফ বিজিবি-২ (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ) ব্যাটালিয়নের দায়ের করা শত কোটি টাকার মানহানি মামলায় জামিন পেয়েছেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্লাস্টের নারী কর্মী।বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।
ওই এনজিও কর্মীর আইনজীবি আবদু শুক্কুর সাংবাদিকদের এই তথ্য নিশ্চিত করেন।
তিনি জানান, আদালতের নির্দেশক্রমে সমন তারিখে হাজির হয়ে জামিন আবদেন করেন ওই নারী এনজিও কর্মী। আদালত তার আবদেন আমলে নিয়ে জামিন মঞ্জুর করেছেন।
সুত্র মতে, গত ৮ অক্টোবর কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের ( টেকনাফ বিজিবি-২ ব্যাটালিয়ন) দমদমিয়া চেকপোস্টে নিয়মমতো অন্য যাত্রীদের সাথে ব্লাস্ট এনজিওর এক নারী কর্মীকেও তল্লাশি করা হয়। অটোরিকশার যাত্রী ওই নারী পরে বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন। তার বক্তব্য দিয়ে জাতীয় ও স্থানীয় অনেক গণমাধ্যম তাদের অনলাইন ভার্সনে প্রতিবেদনও প্রচার করে। এ নিয়ে হৈচৈ পড়ে যায়। ওই নারী কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে এসে ভর্তি হন। কিন্তু কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে সেই নারী এনজিও কর্মীকে ধর্ষণের আলামত পাননি বলে রিপোর্ট দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ নভেম্বর কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে ওই নারীর বিরুদ্ধে শতকোটি টাকার মানহানির মামলা করে টেকনাফ -২ বিজিবি। টেকনাফ বিজিবির দমদমিয়া তল্লাশি ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত জেসিও নায়েব সুবেদার মোহাম্মদ আলী মোল্লা বাদী হয়ে মামলাটি করেন।
তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য টেকনাফ থানা পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়।
২২ নভেম্বর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে টেকনাফ থানা পুলিশ। সেইদিন প্রতিবেদন গ্রহণ করে আসামিকে সমন দেয় আদালত। সমন অনুসারে ১৪ জানুয়ারি আসামি আদালতে হাজির হন।
বিজিবির আইনজীবি সাজ্জাদুল করিম সাংবাদিকদের জানান, বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়ে ব্লাস্ট এনজিওর নারী কর্মী বিজিবির মতো একটি সুশৃঙ্খল বাহিনীর মানহানি করেছে। পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনে সেটি ওঠে এসেছে। আসামী জামিন পেলেও মামলার কার্যক্রম চলবে।

আপনার মন্তব্য দিন