কক্সবাজার সদরের খরুলিয়ায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলে মরিয়া দখলবাজ চক্র

স্টাফ করেসপনডেন্ট ।।

কক্সবাজার সদরের খরুলিয়া সতারচর এলাকায় আদালতে জারিকৃত ১৪৪ ধারার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখলের পায়তারা অভিযোগ উঠেছে সংঘবদ্ধ দখলবাজ চক্রের বিরুদ্ধে। এছাড়া জমির ৪০ হাজার টাকার ক্ষেত নষ্টসহ বিভিন্ন ভাবে ক্ষতি চেস্টা করছে বলেও অভিযোগ।

এ ঘটনায় আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছে জমির মালিক শফিকুর রহমান।
জানা গেছে, কক্সবাজারের খরুলিয়া সুতারচর এলাকার মৃত হাজী আবদুস শুক্কুরের ছেলে শফিকুর রহমানের মালিকানাধীন খরুলিয়া মৌজার ১০ শতক জমি একই এলাকায় জালাল আহমদের ছেলেসহ অন্যান্য দখলের জন্য বিভিন্নভাবে চেষ্টা চালায়।
খরুলিয়া মৌজা সৃজিত বিএস ১৬৬২,৫২৪৪, নং খতিয়ানের ৪২১৮,৩৬৪০ দাগের ১০ শতক জমি শফিকুর রহমান শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখল করে আসছিল কিন্তু প্রতিপক্ষের লোকজনের কোন ধরনের সত্ত্ব না থাকলেও জমির দাম বেড়ে যাওয়ায় তারা দীর্ঘদিন ধরে জমি দখল করে তাদেরকেও উচ্ছেদের পাঁয়তারা করে আসছিল।

এরইমধ্যে ভাড়াটে সন্ত্রাসী নিয়ে প্রতিপক্ষ লোকজন জোরপূর্বক জমি থেকে উচ্ছেদ করতে গেলে জমির মালিক বাধা প্রদান করেন। জমিতে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষসহ শান্তিভঙ্গের সম্ভাবনা বিদ্যমান ছাড়াও প্রতিপক্ষ লোকজন জমি দখল করে ভুমির কোন রকম পরিবর্তন করতে না পারে, উচ্ছেদ করে সেখানে কোন ধরনের স্থাপনা নির্মাণ করতে না পারে সে বিষয়ে ১৪৪ ধারা নিষেধাজ্ঞার আবেদন করে জমির মালিক শফিকুর রহমান। গত ১১ নভেম্বর কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা নং ১০৭২/২০২০ দায়ের করেন।

মামলায় বিবাদী করা হয়, খরুলিয়া সুতারচর এলাকার জালাল আহমদের ছেলে আবছার কামাল, নাজির হোছন প্রকাশ জুনুর ছেলে আক্কাস, মৃত হাজী আবদু শুক্কুরের ছেলে আলী হোছন, মৃত অছিউর রহমানের ছেলে জালাল আহমেদ,আক্কাসের স্ত্রী আরেফা বেগম ও আলী হোছনের ছেলে রেহেনা বেগম।

জমির মালিক শফিকুর রহমানের আবেদনটি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শাহজাহান আলী সার্বিক বিবেচনায় করে আবছার কামালগংয়ের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা জারি করেন।

এছাড়াও কক্সবাজার সদর সহকারী কমিশনার ভুমিকে জমির বিষয় সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক মতামত দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন। কক্সবাজার সদর মডেল থানা ওসিকে বিরোধীয় জমির শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য নির্দেশ দেয় আদালত।

এদিকে, কক্সবাজার সদর মডেল থানার এএসআই মো. আল আমিন ১৪৪ ধারা জারির নোটিশও দেন বিবাদীদের।

জমির মালিক শফিকুর রহমান জানান, প্রতিপক্ষ আফসার কামালসহ তার লাটিয়াল বাহিনী নিয়ে উক্ত জমিতে তাদেরকে যেতে দিচ্ছে না এবং মহিষ লেলিয়ে দেয়াসহ বিভিন্ন উপায়ে তাদের জমির প্রায় ৪০ হাজার টাকার ক্ষেত নষ্ট করেছে। জমিও দখলের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। এব্যাপারে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

আপনার মন্তব্য দিন