কক্সবাজার সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন দিতে মানুষের ঢল

কক্সবাজার সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন দিতে মানুষের ঢল

প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। প্রতিমা বিসর্জন দিতে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে জড়ো হয়েছেন ভক্ত, পূজারী, পর্যটক, দর্শনার্থীসহ হাজারো মানুষ। বুধবার (৫ অক্টোবর) বিকেল ৩টা থেকে সৈকতে মানুষের ঢল নেমেছে।

এর আগে দুপুরের পর বিভিন্ন মণ্ডপ থেকে ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানে করে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের পাড়ে একে একে প্রতিমা নিয়ে আসা হয়। শোভাযাত্রা সহকারেও অনেকে প্রতিমা নিয়ে এসেছেন।

কক্সবাজার দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির সহ-সভাপতি দীপুক শার্মা দীপু বলেন, এ বছর কক্সবাজারের ৩০৫টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা হয়েছে। কক্সবাজার সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন দিতে যেন কোনো অসুবিধা না হয়, সেজন্য আমাদের কয়েকশ স্বেচ্ছাসেবী কাজ করছে। বাংলাদেশ সব বিপদ থেকে রক্ষা পাক- মা দুর্গার কাছে এটাই চাওয়া।

সুনীল শার্মা নামে এক পূজারী বলেন, প্রতিমা বিসর্জনের জন্য কক্সবাজার সৈকতের লাবণী পয়েন্ট খুব সুন্দর আয়োজন করা হয়েছে। মায়ের কাছে একটা চাওয়া পৃথিবীর সবাই যেন সুখে থাকে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ বলেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রতিমা বিসর্জন উপলক্ষে বিশ্বের দীর্ঘতম কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে পুজারীদের ঢল নেমেছে। তাদের নিরাপত্তার জন্য সমুদ্র সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তরাও কাজ করছে।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের পুলিশ সুপার জিল্লুর রহমান বলেন,পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য ট্যুরিস্ট পুলিশ সবসময় প্রস্তুত। প্রতিটি পয়েন্ট সাদা পোশাকে কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। পর্যটকদের সুবিদার জন্য সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে ট্যুরিস্ট পুলিশের হেল্পডেস্ক বসানো হয়েছে। ঢাকা পোষ্ট

Related Articles