সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
Homeকুতুবদিয়াকক্সবাজার-২ আসনে নৌকার প্রার্থীর স্বস্থির মধ্যে অস্বস্থিও কম না!

কক্সবাজার-২ আসনে নৌকার প্রার্থীর স্বস্থির মধ্যে অস্বস্থিও কম না!

সাঈদ মুহাম্মদ আনোয়ার

কক্সবাজার দুইটি দ্বীপ উপজেলা মহেশখালী ও কুতুবদিয়া নিয়ে গঠিত কক্সবাজার-২ আসন। এআসনে বর্তমান ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৪৮ হাজার ১২৭ জন। যেখানে মহেশখালী উপজেলায় ২ লাখ ৫২ হাজার ৬০৪ জন এবং কুতুবদিয়া উপজেলায় ৯৫ হাজার ৫২৩ জন ভোটার রয়েছে। এই আসনে ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা হবে ১১৮ টি।

এই আসনটিতে ৬ জন প্রার্থীই দলীয় প্রতীকের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যেখানে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক অনেক সুবিধাজনক অবস্থায় তৈরি করেছেন। তবে তাঁর একই স্বস্থির মধ্যে অস্বস্থিও কম না।

এই আসনে টানা ২ বারের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক ১০ বছরে তৈরি করেছেন নিজের বিরোধী একটি গোষ্ঠি। দলের সুবিধা বঞ্চিত নেতা-কর্মী, ইউনিয়ন পরিষদ সহ স্থানীয় নির্বাচনে বৈষম্যের শিকার প্রার্থীদের এখন আশেক বিরোধী অবস্থান অনেকটা প্রকাশ্যে। এরা সকলেই বিএনএম এর নোঙ্গর প্রতীকের প্রার্থী শরীফ বাদশাহর পক্ষে রয়েছেন।

খোদ দলের অনেক শীর্ষ নেতারা প্রকাশ্যে আশেক উল্লাহ রফিকের পক্ষে ভোট চাইলেও গোপনে ভিন্ন কথা প্রচারণের অভিযোগ ইতিমধ্যে উঠেছে।

স্থানীয় আওয়ামী নেতারা জানিয়েছেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার পাশার ছেলের বিরোধিতা করেন এমপি আশেক উল্লাহ রফিক। সেই সময়কার মধুর প্রতিশোধ নিতে চাচ্ছে আনোয়ার পাশা চৌধুরী। তিনি এ পর্যন্ত আশেকে পক্ষে প্রকাশ্যে আসেননি। মহেশখালী উপজেলা সাধারণ সম্পাদক তারেক বিন ওসমান শরীফ এমপির সঙ্গে থাকলেও গোপনে শরীফ বাদশার পক্ষে রয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। আওয়ামীলীগ নেতা পরিবেশ বিজ্ঞানী আনছারুল করিম, যুবলীগের শাহজাহানসহ বিরাট একটি অংশ প্রকাশ্যে বিরোধিতা করছেন। গোষ্ঠীগত বিরোধের কারণে মহেশখালীতে ক্রমাগত ভারী হচ্ছে আশেক বিরোধী গ্রæপে। একই সঙ্গে কুতুবদিয়ার শ্রমিক লীগ নেতা মনোয়ারুল ইসলাম মুকুলদের বিরাট অংশ এমপি বিরোধী। স্থানীয় বিএনপি-জামায়াতের নেতারা আশেককে পরাজিত করতে কৌশলে কাজ করছে।

তবে শেষ মূহুর্তে এসে আশেক উল্লাহ রফিকের পক্ষে পারিবারিক সম্পর্কের জের ধরে বিএনপি-জামায়াতের একটি পক্ষ প্রচারণা চালিয়ে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। যেখানে বিএনপির নেতা আলমগীর ফরিদও ভাতিজা আশেকের পক্ষে মাঠে নেমেছে। ফলে শেষ মূহুর্তে স্বস্থিতে রয়েছে নৌকা।

বিএনএম এর নোঙ্গর প্রতীতের প্রার্থী শরীফ বাদশাহ বলছেন, আওয়ামীলীগ ছাড়াও সাধারণ ভোটারদের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই। আমিই বিজয় হব।

এমপি আশেক উল্লাহ বলেছেন, শেখ হাসিনার উন্নয়নে সুবিধাভোগী মহেশখালী কুতুবদিয়ার মানুষ নৌকাকে ভোট দিয়ে বিজয় করবে। আমি বিজয় হব।

এই আসনে অন্য প্রার্থী হলেন, ইসলামী ঐক্যজোটের মোহাম্মদ ইউনুস (মিনার), ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান (চেয়ার), বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির (বিএসপি) মোহাম্মদ খায়রুল আমীন (একতারা), ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (এনপিপি) মাহবুবুল আলম (আম)।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments