করোনা আক্রান্ত বাবাকে পানি খাওয়ানোর চেষ্টা মেয়ের, ভয়ে সরাতে চাইলেন মা : পরে মৃত্যু

নিউজ কক্সবাজার ডেস্ক।।

কাজের সন্ধানে অন্য স্থানে যাওয়া ৫০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর ফিরে এসেছিলেন নিজ গ্রামে। কিন্তু নিরাপত্তার কথা ভেবে তাকে গ্রামে ঢুকতে দেয়নি স্থানীয়রা। হাসপাতালে জায়গা খালি না থাকায় সেখানেও স্থান হয়নি তার। শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়ে গ্রামের বাইরে একটা মাঠে কুঁড়েঘরে থাকতে শুরু করেন তিনি। পরবর্তীতে তার শরীর এতটাই খারাপ হয় যে নিজে পানি খাওয়ার মতো অবস্থা ছিল না তার। বাবার এমন অবস্থা দেখে মেয়ে পানি খাওয়াতে গেলে সংক্রমণের ভয়ে মেয়েকেও তার কাছ থেকে সরানোর চেষ্টা করেন মা। সম্প্রতি এমনই এক ঘটনা ঘটেছে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে। খবর এনডিটিভির

প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে জানা গেছে, ওই ব্যক্তি বিজয়ওয়াড়া থেকে করোনা পজিটিভ হয়ে শ্রীকাকুলামে নিজের বাড়িতে ফিরেছিলেন। কিন্তু তাকে গ্রামে ঢুকতে দেননি স্থানীয়রা । গ্রামের বাইরে একটি ছোট্ট কুঁড়ে ঘরে রেখে দেওয়া হয় ওই করোনা রোগীকে । এক গ্রামবাসীর করা ভিডিওতে দেখা গেছে, মাটিতে শুয়ে কাতরাচ্ছেন এক ব্যক্তি। করোনা আক্রান্ত বাবাকে একটু পানি খাওয়াতে যাচ্ছে তার ১৭ বছরের কিশোরী মেয়ে । কিন্তু তার মা যেতে বাধা দিচ্ছে তাকে । স্বামীর কষ্ট চোখে দেখেও মেয়েকে আগলে রাখার তাগিদেই এমন কাজ করেন ওই নারী। যদিও শেষ পর্যন্ত বাবাকে পানি খাওয়াতে সফল হয় মেয়ে। কিন্তু এর কিছুক্ষণ পরেই মারা যান লোকটি। ভিডিওতে দূর থেকে কয়েকজনকে গোটা দৃশ্য দেখতেও দেখা গেছে। এটি করোনা মহামারিতে আক্রান্ত ভারতের মন খারাপ করা গল্পগুলোর একটি। শুধু দিল্লি , মহারাষ্ট্র নয়, ভারতের অনেক গ্রামেও করোনা রোগীদের এমন করুন পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে।

অন্ধ্রপ্রদেশে একদিনে নতুন করে ২০ হাজার জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে এবং মৃত্যু হয়েছে ৭১ জনের। এখন পর্যন্ত এ রাজ্যে ১১ লাখ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

আপনার মন্তব্য দিন