চকরিয়ায় চোরের আস্তানা থেকে দুই মালিকের ১২টি মহিষ উদ্ধার

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া

চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড কোরালখালী পশ্চিম পাড়া এলাকা থেকে বুধবার রাতে চোরের আস্তানা থেকে ১২টি মহিষ উদ্ধার করেছে স্থানীয় জনতা। উদ্ধারকৃত এসব মহিষের মালিক স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য আবদুর রহিম ও চিংড়িঘের মালিক মোহাম্মদ ভূট্টো। উদ্ধারকৃত মহিষ গুলোর অনুমানিক মূল্য সাড়ে ৮ লাখ টাকা হবে বলে ধারণা করা হয়েছে। জনতার হাত থেকে চোরদের ছিনিয়ে নেয়ায় স্থানীয়দের মাঝে চরম উত্তেজনা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মহিষ মালিক স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য আবদুর রহিম জানান, তিনি এবং পাশের চিংড়িঘের মালিক ভূট্টোর চিংড়ি ঘের থেকে বুধবার রাতে চোরের দল ১২টি মহিষ চুরি করে নিয়ে যাচ্ছিলেন। এমন সংবাদের ভিত্তিতে এলাকাবাসি কোরালখালী এলাকা দিয়ে তারা গিয়ে দেখতে পায় কতিপয় লোকজন মহিষ গুলো নিয়ে আসছে।

তিনি জানান, তারা ঘটনাস্থলে পৌছার আগে স্থানীয় লোকজন ওইসব চোরের দলকে ছিনতে পেয়ে তারা মহিষ গুলো আটক করে। এসময় ওই স্থানীয় মোরর্শেদ নামের একব্যক্তি সেখানে উপস্থিত হয়ে আটক চোরদেরকে জনতার হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়।
মহিষ মালিক মোহাম্মদ ভূট্টো জানান, চোরের দল যদি আর ৫/১০ মিনিট সময় পেত তা হলে তাদের মহিষ গুলো মূল চোরের ডেরায় চলে যেত। এতে করে আমরা প্রায় সাড়ে ৮ লাখ টাকার মহিষ হারাতাম।

স্থানীয় লোকজন জানায়, এসব চোর দলের হাতে রয়েছে অবৈধ অস্ত্র ও গরু—মহিষ চুরির বিভিন্ন যন্ত্রপাতি। সুযোগ বুঝে তারা মানুষের বাড়ি, চিংড়িঘেরের খামারে থাকা মহিষ—ভেড়া—ছাগল চুরি করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসি চোরের সর্দার ও তার সহযোগিদের গ্রেফতার পুর্বক দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন পুলিশ প্রশাসনের কাছে। 

 

আপনার মন্তব্য দিন