চকরিয়ায় বাড়িতে দাওয়াতে ডেকে পানিতে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ! ধর্ষক ও সহযোগি নারীর বিরুদ্ধে মামলা

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক ,চকরিয়া

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে ১২ বছরের এক কিশোরীকে কৌশলে বাড়িতে দাওয়াত দিয়ে পানির সাথে নেশা জাতীয় দ্রব্য মেশিয়ে খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ২ জুন বিকাল ৫টার দিকে উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ডস্থ গর্জনতলী এলাকার জনৈক ফখরুল ইসলামের বসতঘরে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে সোমবার (৭জুন) দুইজনকে আসামী করে চকরিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছে। মামলা নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া থানার ওসি শাকের মুহাম্মদ যোবায়ের।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন বুধবার (২জুন) বিকেলে খুটাখালী ইউনিয়নের গর্জনতলী এলাকার জনৈক ফখরুল ইসলামের মেয়ে রোকশানা আক্তার কৌশলে প্রতিবেশি এক কিশোরীকে দাওয়াত দিয়ে তার বাড়িতে ডেকে আনেন।
পরে ভাত খাওয়ার সময় পানির সাথে নেশা জাতীয় দ্রব্য মেশিয়ে খাওয়ানো হলে কিছুক্ষন পর সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরবতীর্তে ওইবাড়িতে আগে থেকে অবস্থান করা কতিপয় যুবক ওই কিশোরীকে ধর্ষন করে।

ভিকটিম কিশোরীর মা দাবি করেন, শাররীক নির্যাতনে তাঁর মেয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরদিন সকালে অভিযুক্তরা তাকে অচেতন অবস্থায় আমাদের ঘরে রেখে চম্পট দেয়। পরে শাররীক অবস্থা বিবেচনা করে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা দেয়ার পর জ্ঞান ফিরলে সে (কিশোরী) আমাকে বিস্তারিত জানান বলে দাবি করেন ভিকটিমের মা। এরপর তিনি বিষয়টি চকরিয়া থানার ওসিকে জানালে তিনি এজাহার জমা দিতে বলেন।

চকরিযা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনার বিষয়ে থানায় একটি মামলা (নং মামলা নং— ১৩/২৩৫ ) রুজু করা হয়েছে। ভিকটিম ওই কিশোরীর মাতা বাদী হয়ে এজাহারে ধর্ষক যুবক ও সহযোগি নারীসহ দুইজনকে আসামী করেছেন। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। 

আপনার মন্তব্য দিন