টেকনাফ বাহারছড়ায় রোহিঙ্গাদের হামলায় বয়োবৃদ্ধ স্বামী-স্ত্রীসহ আহত-৪

স্টাফ করেসপনডেন্ট।।

চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার সময় বাধা দিতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন বয়োবৃদ্ধ ছৈয়দ আহমদ, তার স্ত্রী ছেনুয়ারা খাতুন (৬০), পুত্র ও পুত্র বধূসহ ৪ জন। আহতদের মধ্যে বৃদ্ধা ছেনুয়ারা খাতুন ও তার স্বামী ছৈয়দ আহমদের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে। গত গত ০৮ মার্চ বিকেল আনুমানিক সাড়ে ৩ টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর ঢালার মুখ এলাকায় বশিরের ছেলে তারেক তার বসতবাগানে থাকা রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারি নুর মোহাম্মদ ও তার সহযোগীদের নিয়ে এ হামলা ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ।
আহতরা হলেন, ছৈয়দ আহমদের স্ত্রী ছেনোয়ারা খাতুন (৬০), মৃত মকতুল হোসেনের ছেলে ছৈয়দ আহমদ (৬৫),আজিজের স্ত্রী সাবেকুন্নাহার (২৭), ছৈয়দ আহমেদের ছেলে আজিজ (৩৫)।
গুরুতর আহত ছৈয়দ আহমদের ছেলে আজিজ জানিয়েছেন, গত ৮ মার্চ তাদের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয় শামলাপুর ঢালার মুখ এলাকায় বশিরের ছেলে তারেকের বসতবাগানে থাকা রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারি নুর মোহাম্মদ। এতে বাধাঁ দেয় তার বৃদ্ধা পিতা। রাস্তা বন্ধ না করতে বাধা দিলে রোহিঙ্গা নুর মোহাম্মদে ছোট ভাই বশির, তারেক, জুহুরা খাতুন, তাসলিমা,জান্নাতুল বকেয়া, রোহিঙ্গা নুর মোহাম্মদ ও তার স্ত্রী সনজিদা সংঘবদ্ধ ভাবে তার পিতার উপর হামলা চালায়। এতে তার বাবাকে বাচাঁতে মা ছেনোয়ারা খাতুন এগিয়ে যান। তাকেও এলোপাতাড়ি মারধর করতে দেখে তার স্ত্রী সাবেকুন্নাহার দৌড়ে এগিয়ে গেলে তাকেও লৌহার রড, ধারালো দা দিয়ে গুরুতর আহত করে।
ঘটনার খবর আজিজও ঘটনাস্থলে এগিয়ে আসার পথে তারেক ও রোহিঙ্গা নুর মোহাম্মদ তার উপরও হামলা চালানো হয়।
তার হাতে ও পায়ে লোহার রড দিয়ে মারাত্মক আঘাত করা হয়।
আহতদেরকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে বাহারছড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এই বিষয়ে হামলাকারী রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান গুরুতর আহত আজিজ।

আপনার মন্তব্য দিন