দেবাঙ্গাপাড়ার ওসমানের পুত্র সন্ত্রাসী ফারুখের মদের কারখানায় পুলিশের বড় অভিযান

দেবাঙ্গাপাড়ার ওসমানের পুত্র সন্ত্রাসী ফারুখের মদের কারখানায় পুলিশের বড় অভিযান

এম বশির উল্লাহ।।  কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর পাহাড়ি এলাকায় মদ তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। বুধবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত গহীন পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে  মদের কারখানা গুড়িয়ে দিয়েছে এবং এ ঘটনায় ৩ শত লিটার চোলাই মদ সহ  ২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে   আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে , উপজেলার ছোট মহেশখালীর দেবেঙ্গা পাড়ার গহীন পাহাড়ে সন্ধান পাওয়া মদের কারখানা তিনশত লিটার চোলাই মদ জব্দ করেছে পুলিশ। এসময় মদ তৈরীর বেশ কিছু উপকরণ জব্দ করা হয়,  এর মধ্যে রয়েছে ৮টি নীল রং ড্রাম, ৩টি মদ তৈরীর পাতিল সহ নানা সামগ্রী।

আটককৃতরা হলেন- দেবাঙ্গাপাড়া এলাকার মাদক ব্যাবসায়ী ফারুকের  দুই সহচর মহিম উদ্দিন ও শাহাদত উল্লাহ।
পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী দেবাঙ্গাপাড়াস্থ পাহাড়ি এলাকায় অস্ত্র তৈরী ও মদ উৎপাদন করে মহেশখালীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করে আসছে। বুধবারের অভিযানে ফারুককে পাওয়া যায়নি তবে তার দুই সহযোগিকে আটক করা হয়েছে, মদের কারখানা গুড়িয়ে হয় ।

মহেশখালী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রনব চৌধুরী জানান,  দেবাঙ্গাপাড়াস্থ গভীর পাহাড়ে দীর্ঘ ২ ঘন্টা অভিযান পরিচালনা করে  পাহাড়ের একদম উচুতে মদের কারখানার সন্ধান পাওয়া যায় , এসময় দুই জনকে হাতেনাতে আটক করা হয়েছে । তাদের লিডার ফারুককে ধৃত করতে আমাদের অভিযান চলবে।  মদসহ আটককৃতদের থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৭ সালে মহেশখালী থানা পুলিশের অভিযানে দেবেঙ্গা পাড়ার পাহাড় থেকে বিপুল পরিমান চোলাই মদ ও ৩টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র সহ ৩ জনকে আটক করা হয়েছিলো। তার পর থেকে পাহাড়ে আর কোন অভিযান পরিচালনা করেনি পুলিশ । ওসি  প্রনব চৌধুরী মহেশখালী যোগদান কারার পর থেকে মাদক, সন্ত্রাস ও বিভিন্ন দাগী আসামীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত  অভিযান পরিচালনা করার ফলে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীতে।

Related Articles