নাফ টিভি ও টেকনাফ প্রতিদিনের দুই সাংবাদিক ইয়াবাসহ চট্টগ্রামে গ্রেফতার

আয়াজ আহমাদ, চট্টগ্রাম।।

চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা থানাধীন বরুমছড়া এলাকায় অভিযান চালিয়েনাফ টিভি ও টেকনাফ প্রতিদিনের কথিত সাংবাদিক পরিচয়দানকারী দুইজন ইয়াবা কারবারীকে ১৭,৬৪৫ পিস ইয়াবাসহ আটক করেছে র‍্যাব-৭।

আটক ইয়াবার আনুমানিক মুল্য ৫৪ লক্ষ টাকা। মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেলও জব্দ করা হয়েছে।
আটককৃতরা হলেন, মোঃ শহিদুল ইসলাম (২৮), পিতা- মোঃ কাইয়ুম শরীফ, সাং- খাঁনকারদেল (কাইয়ুম শরিফের বাড়ী), ০৮নং ওয়ার্ড, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার ও কবির আহাম্মেদ (৩১), পিতা- মোঃ আমিন, সাং- পুরাতন পল্লানপাড়া, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার।
তারা অনলাইন নিউজ পোর্টাল টেকনাফ প্রতিদিন ও অনলাইন টিভি নাফ টেলিভিশনের সাংবাদিক বলে দাবি করেন।

র‍্যাব-৭, প্রতষ্ঠিালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, অপরাধীদরে গ্রেফতারসহ আইন শৃঙ্খলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।
অস্ত্রধারী সস্ত্রাসী, ডাকাত, র্ধষক,চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনি, বিপুল পরিমাণ অবধৈ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার, মাদক উদ্ধার, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতারের করে জিরো টলারন্সে নীতি অবলম্বন করায় সাধারণ জনগনের মনে আস্থা র্অজন করতে সক্ষম হয়েছে র‍্যাব-৭ চট্টগ্রাম।
র‍্যাব-৭ সুত্রে জানাগেছে, গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মোটরসাইকেল যোগে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য নিয়ে কক্সবাজার হতে চট্টগ্রামের দিকে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে ২১ মার্চ সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে র‍্যাব-৭ চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা থানাধীন বরুমছড়া রাস্তার মাথা ইউরো স্টার ইউনিক পয়েন্ট ক্রোকারিজ দোকানের সামনে বাঁশখালী-চট্টগ্রাম পাকা রাস্তার উপর একটি বিশেষ চেকপোস্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশি শুরু করেন।
এসময় র‍্যাবের চেকপোস্টের দিকে আসা একটি মোটরসাইকেলের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে র‌্যাব সদস্যরা মোটরসাইকেলটিকে থামানোর সংকেত দেন। কিন্তু মোটরসাইকেলটি র‍্যাবের চেকপোস্টের সামনে না থামিয়ে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‍্যাব-সদস্যরা ধাওয়া করে চালক ও আরোহীকে আটক করে।
পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের দেখানো ও শনাক্ত মতে নিজ হেফাজতে থাকা মোটরসাইকেলের ভিতরে তেলের ট্যাংকির ভিতর হতে ১৭,৬৪৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। উক্ত মোটরসাইকেলটি ( নং চট্ট-মেট্রো-ল-১৪-২৯৪০) জব্দ করা হয়।
গ্রেফতারকৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে তারা দুইজন সাংবাদিক পরিচয় দেন এবং দুটি সাংবাদিকতার আইডিকার্ড প্রদর্শন করে। নিজেদেরকে অনলাইন নিউজ পোর্টাল “টেকনাফ প্রতিদিন’ অনলাইন টিভি ‘নাফ টেলিভিশন’ এর সাংবাদিক বলে দাবি করে। তারা দীর্ঘদিন যাবত সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কক্সবাজার জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা টেকনাফ হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে পরবর্তীতে বিভিন্ন কৌশলে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারীদের নিকট বিক্রয় করে আসছিল।

উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ৫৪ লক্ষ টাকা এবং জব্দকৃত মোটরসাইকেলের আনুমানিক মূল্য ০২ লক্ষ টাকা।
গ্রেফতারকৃত আসামি ও উদ্ধারকৃত মালামাল সংক্রান্তে পরর্বতী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এব্যাপারে মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এদিকে, খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আটক শহীদুল টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটি নামের একটি সাংবাদিক সংগঠনের সক্রিয় সদস্য বলে জানা গেছে। কয়েকদিন আগে তাকে নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ক্রেস্ট দিতে দেখা গেছে ইউনিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক সহ অন্য সদস্যদের সাথে। এভাবে নবাগত প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও আইন শৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের প্রথমে ফুল দিয়ে অথবা কোন কারন ছাড়াই ক্রেস্ট দিয়ে এরা শখ্যতা গড়ে তুলে পড়ে মাদক পাচারের সুবিধার্তে সেইসব ছবি ব্যবহার করে থাকে বলে অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তারা এই কৌশলে মাদক পাচার চালিয়ে গেলেও মাঝেমধ্যে দুয়েকজন আটক হলে সর্বত্র তোলপাড় সৃষ্টি হয়। পরে তারা আবার শুরু করে নতুন উদ্যমে মাদক ব্যবসা। এই কথিত সাংবাদিক সংগঠনটির সদস্যদের আয় ব্যয়ের উৎস অনুসন্ধান করলে সবার গোমর ফাঁস হবে বলে মনে করেন সচেতন মহল। এর আগেও এই সংগঠনটির বহু সদস্য ইয়াবাসহ আইন শৃংখলা বাহিনীর হাতে আটক হয়েছিল।

 

আপনার মন্তব্য দিন