পেকুয়ায় অভিনব কায়দায় বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটরের গেইটের তালা ভেঙে সাড়ে ৪৬ লাখ টাকা লুট 

এম.জুবাইদ,পেকুয়া(কক্সবাজার) 
কক্সবাজারের পেকুয়ায় অভিনব কায়দায় মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটরের অফিসের তালা ভেঙ্গে সাড়ে ৪৬ লাখ টাকা লুট করার ঘটনা ঘটেছে।
 জানা যায়, ৭ জুলাই রাত সাড়ে ১০ টায় পেকুয়া আলহাজ্ব কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের পূর্ব পাশে ইসমাইল মেম্বারের ভবনে এ ঘটনা ঘটে। 
ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত সময়ে পেকুয়া থানার এস আই মিন্নত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে প্রাথমিক তদন্তের কাজ শুরু করে।
 এদিকে ঘটনার পর পরই পেকুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 
বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটরের হিসাবরক্ষক আসাদুর রহমান বলেন, লকডাউনের কারণে ব্যাংকিং সেবা সীমিত হয়ে পড়ায় আমরা দৈনন্দিন লেনদেন গুলো করতে হিমশিম খাচ্ছি। গত দুইদিনে টাকা জমা দিতে পারিনি।ফলে অফিসে নগদ টাকার পরিমান বেড়ে যায়। বিষয়টি আমি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছিলাম। ওনারা এখানে রাখতে অনুমতি দিয়েছেন। তাই রেখে দিয়েছিলাম। ঘটনার দিন রাতে হোটেলে ভাত খেতে আমি ও আব্দুল্লাহ, জুনাইদ, কফিল বাইরে গেলে আগে থেকে উৎপেতে থাকা লুটকারীর দল হানা দেয়। হোটেল বন্ধ থাকায় সাবেকগুলদি এলাকার আমাদের ইনচার্জের বাসায় ভাত খেতে যায়। ভাত খেয়ে অফিসে ফিরে দেখতে পাই গেইটের তালা নেই এবং ভিতরের লকারের তালা ভেঙে নগদ সাড়ে ৪৬ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।  
বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটর পেকুয়া শাখার ইনচার্জ রেজাউল করিম বলেন, সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে এ চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, হেলমেট ও মাস্ক পরিধান করা মুখ ঢেকে এক যুবক ভবনের সিঁড়ি বেয়ে তিন তলায় ওঠে আসে। আমাদের অফিসের দরজার ওপরে থাকা বিদ্যুতের মেইনসুইচ অফ করে দেয়। এতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে পুরো অফিস। বন্ধ হয়ে যায় সিসিটিভি ক্যামেরা। এরপর  লুটকারীরা অফিসের গেইট ও লকারের মোট পাঁচটি তালা ভেঙে নগদ টাকা গুলো নিয়ে যায়। তবে লকারের পাশের টেবিলের ড্রয়ারে থাকা নগদ সাড়ে চার লাখ টাকা অক্ষত রয়েছে। 
বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটর আমিনুল ইসলামের ছোট ভাই জাহেদুল ইসলাম বলেন, আমাদের অফিসের নীচতলায় ইসলামী ব্যাংক ও আশেপাশে ভবনে বিভিন্ন ব্যবসায়িক অফিস ও দোকানের গুদাম রয়েছে। এমন একটি বাণিজ্যিক এলাকায় এতবড় চুরির ঘটনায় আমি খুবই হতাশা ভোগ করছি এবং ব্যবসায়িক ভাবে নিরাপত্তা হিনতায়। এ ঘটনায় পেকুয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ  (ওসি) সাইফুর রহমান মজুমদার অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা জানিয়ে দৈনিক অধিকার কে জানান, বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটর ও আশেপাশের সিসিটিভির ফুটেজ পর্যালোচনা করছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করতে পুলিশ তৎপর।
আপনার মন্তব্য দিন