ফাঁসিয়াখালী-মেধাকচ্ছপিয়া বনাঞ্চল সহ-ব্যবস্থাপনা কাউন্সিলের নতুন কমিটি ঘোষনা 

মোঃ নাজমুল সাঈদ সোহেল, চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের অধীন সংরক্ষিত বনাঞ্চল এলাকার ব্যবস্থাপনা বিধিমালা-২০১৭ অনুযায়ী ফাঁসিয়াখালী বন্যপ্রাণি অভয়ারণ্য ও মেধাকচ্ছপিয়া জাতীয় উদ্যান এর প্রথম কাউন্সিল ও কমিটি গঠন উপলক্ষ্যে সোমবার ৯ আগস্ট দুপুরে চকরিয়া উপজেলার মালুমঘাটস্থ ফাসিয়াখালী রেঞ্জ কার্যালয়ে একসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
চকরিয়া উপজেলা বনায়ন ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও  উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ সভায় সভাপতিত্বে করেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা (ডিএফও) ও সহব্যব¯’াপনা পরিষদের উপদেষ্টা মো.তহিদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও সহব্যব¯’াপনা পরিষদের উপদেষ্টা আলহাজ¦ ফজলুল করিম সাঈদী, নেকমের ইউএসএইড এর ইকো লাইফ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক ড. শফিকুর রহমান, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী। 
অনুষ্ঠিত সভাটি সঞ্চালনা করেন ইকো লাইফ প্রকল্পের এনআরএম ম্যানেজার মোঃ আব্দুল কাইয়ুম। এতে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা বেনজির আহমদ, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা সুপন নন্দী, ডুলাহাজারা কলেজের অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.নুরুল আমিন, সহকারি বনসংরক্ষক (এসিএফ) মাসুদ রানা, ফাসিয়াখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা মো.মাজহারুল ইসলাম প্রমুখ।
বাংলাদেশ সরকারের পরিবেশ, বন ও জলাবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রনালয় এর আওতাধীন ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে ও নেচার কনজারভেশন ম্যানেজমেন্ট (নেকম) কর্তৃক বাস্তবায়িত ইকো লাইফ প্রকল্পের সহায়তায় ও কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের দিকনির্দেশনায় সহ-ব্যবস্থাপনা সাধারণ কমিটি/কাউন্সিল অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
সভার আলোচনা পরবর্তী সবার মতামতের ভিত্তিতে বনাঞ্চলেল রক্ষিত এলাকা ব্যবস্থাপনা বিধিমালার আলোকে বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্রতিনিধি থেকে ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট মেদাক”ছপিয়া সহ-ব্যবস্থাপনা সাধারণ কমিটি/কাউন্সিল ও ফাঁসিয়াখালী সহ-ব্যবস্থাপনা সাধারণ কমিটি/কাউন্সিল গঠন করা হয়। পরে বিধিমালার আলোকে ২১ সদস্য বিশিষ্ট মেদাক”ছপিয়া সহ-ব্যবস্থাপনা নির্বাহী কমিটি ও ফাঁসিয়াখালী সহ-ব্যবস্থাপনা নির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়। 
সভায় স্বাগত বক্তব্যে ফাঁসিয়াখালীর রেঞ্জ কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম উপস্থিত সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে স্থানীয় জনগনের সম্পৃক্ততার মাধ্যমে বন সংরক্ষনের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে বিশদ আলোচনা করেন। তিনি ফাঁসিয়াখালী ও মেদাকচ্ছপিয়া সহ-ব্যবস্থাপনা পরিষদের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস, বিদ্যমান সমস্যা ও চ্যালেঞ্জসমুহ তুলে ধরেন। 
তিনি বলেন, বণ্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ও জাতীয় উদ্যান এর জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের দিক থেকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হলেও আর্থ সামাজিক বাস্তবতার কারনে তা সম্ভব হচ্ছে না। প্রায় ৪৩টি গ্রামের ৫০,০০০ হাজার মানুষ বনের উপর কম বেশি নির্ভরশীল, তাই স্বল্প জনবল নিয়ে সরকারের একার পক্ষে তা সামলানো যা”েছ না। এ জন্য সহ-ব্যবস্থাপনা সংগঠন অনেক বেশি প্রয়োজন।
ইকো লাইফ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক ড. শফিকুর রহমান রক্ষিত এলাকা ব্যব¯’াপনা বিধিমালা-২০১৭ অনুযায়ী ফাঁসিয়াখালী বন্যপ্রাণি অভয়ারণ্য ও মেদাক”ছপিয়া জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কাউন্সিল ও কমিটি গঠন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। তিনি কাউন্সিল গঠনের মূল লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং কাউন্সিল ও কমিটি সদস্যদের দায়িত্ব-কর্তব্য গঠনতন্ত্রের আলোকে আলোচনা করেন। এর পর ২(দুই) বছরের জন্য কমিটি নির্বাচনের বিষয়ে একটি সুষ্পষ্ট ধারনা প্রদান করে বক্তব্য রাখেন এবং গনতান্ত্রিক পদ্ধতিতে কমিটি নির্বাচনের জন্য বিভিন্ন ক্যাটাগরির সদস্যবৃন্দকে আহবান জানান । এছাড়া স্থানীয় জনগনকে সামাজিক বনায়নে অংশীদার করায় বন বিভাগের প্রশংসা করেন। 
সভায় বিশেষ অতিথি চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, বণ্যপ্রাণী ,জীববৈচিত্র্য, বন ও বনভূমি এগুলো আমাদের জীবনেরই অংশ এবং এগুলো রক্ষা করা আমাদেরই দায়িত্ব। কাউন্সিল গঠনের পর নব গঠিত  ফাঁসিয়াখালী ও মেদাকচ্ছপিয়া সহ-ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্যদেরকে অভিনন্দন জানান এবং সর্ব মহলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।
প্রধান অতিথি কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ তহিদুল ইসলাম সংশ্লিষ্ট সকলকে রিজার্ভ ফরেষ্ট, প্রোটেকটেড ফরেষ্ট, প্রোটেকটেড এরিয়া, কো-ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি সম্পর্কে ধারনা দিয়ে বনাঞ্চল রক্ষায় সবাইকে অঙ্গীকারাবদ্ধ হবার জন্য সন্মানিত সদস্যদেরকে বন ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের শপথ নেওয়ার আহবান জানান। 
তিনি বলেন, আমাদের একার পক্ষে বন রক্ষা করা সম্ভব নয় তাই সকলকে এক যোগে কাজ করতে হবে। পুলিশ ও উপজেলা প্রসাশন আমাদের সাথে আছে তাই প্রতিটি সভায় সকল বিভাগের প্রতিনিধি থাকা অতিব জরুরী। তিনি কাউন্সিল গঠনের মূল লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং কাউন্সিল ও কমিটি সদস্যদের দায়িত্ব-কর্তব্য গঠনতন্ত্রের আলোকে আলোচনা করেন। তিনি বলেন সম্পূর্ণ নিয়ম কানুন মেনে পূর্বের সিএমসি, বনবিভাগ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের রক্ষিত এলাকা বিধিমালা-২০১৭ অনুযায়ী কাউন্সিল সদস্য নির্বাচন করা হয়। তিনি এ ব্যাপারে সহযোগিতাকারীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।
মেধাকচ্ছপিয়া সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটিতে আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন সভাপতি, শফিউল আলম মেম্বার সহ-সভাপতি, আক্তার কামাল কোষাধ্যক্ষ এবং ফাঁসিয়াখালী সহ-ব্যব¯’াপনা সাধারণ কমিটিতে অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী সভাপতি, কলিম উল্লাহ কলি সহসভাপতি, রুনা ইসলামকে কোষাধ্যক্ষ হিসেবে চুড়ান্ত করা হয়। সহ-ব্যবস্থাপনা কাউন্সিলের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ আনুষ্ঠানিক ফাঁসিয়াখালী ও মেদাকচ্ছপিয়া সহ-ব্যবস্থাপনা কাউন্সিল সদস্যের নাম ঘোষনা করেন। এরপর তিনি নবনির্বাচিত সহ-ব্যবস্থাপনা কাউন্সিলের সবাইকে প্রশ্ন করেন আপনার সবুজ বনাঞ্চল চান কী না, এসময় সবাই একাট্টাপোষন করে বলেন আমরা ফাসিয়াখালী মেধাকচ্ছপিয়ার নবুজ বনাঞ্চল রক্ষায় বদ্ধপরিকর। এরপরে ইউএনও সৈয়দ সামসুল তাবরীজ সবাইকে দায়িত্ব পালনে করূনীয় সর্ম্পকে অবহিত করে শপথ বাক্য পাঠ করান। 
আপনার মন্তব্য দিন