বিজিবির পৃথক অভিযানে লক্ষাধিক ইয়াবাসহ আটক ৫

বিশেষ প্রতিনিধি

কক্সবাজারের টেকনাফে পৃথক দুটি অভিযানে ১লাখ ৪ হাজার পিস ইয়াবা বড়িসহ ৫ জনকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন ২বিজিবি। এই ঘটনায় পাচার কাজে ব্যবহৃত ট্রলার ও মোটর বাইকটি জব্দ করা হয়েছে।

সোমবার (৪ সেপ্টেম্বর) উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া সড়ক তল্লাশী চৌকি ও সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ এলাকা হতে এসব মাদক জব্দ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ২ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফয়সাল হাসান খান।

তিনি জানান, সোমবার সকাল ১১টায় দমদমিয়া সড়ক তল্লাশী চৌকিতে একটি নাম্বার বিহীন মোটর সাইকেলকে থামানোর সংকেত দিলে কিছুদূর গিয়ে চালক বাইকটি ফেলে পার্শ্ববর্তী পাহাড়ের দিকে পালিয়ে গেলে ধাওয়া করেও তাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। পরে বাইকটির তেলের ট্যাংক থেকে বিশেষ কায়দায় লুকানো অবস্থায় ১৪ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে বাইকটি জব্দ করা হয়।

একইদিন দুপুরে শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রী পাড়া ঘাট দিয়ে ইয়াবার একটি চালান পাচারের গোপন তথ্যের ভিত্তিতে নাফ নদীর মোহনায় একটি মাছ ধরার ট্রলারে অভিযান চালিয়ে সন্দেহ জনক ৫ জন জেলেকে জিজ্ঞাসাবাদ কালে তারা ট্রলারে ইয়াবা রয়েছে বলে স্বীকার করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তি মতে ট্রলারের তেলের ট্যাংকে লুকানো অবস্থায় ৯০ হাজার পিস ইয়াবাসহ তাদের আটক করা হয়। এসময় ৫শ কেজি জালসহ ট্রলারটি জব্দ করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- শাহপরীরদ্বীপ মাঝের পাড়া এলাকার মৃত শাহ আলমের ছেলে শামশুল আলম (২৫), শাহপরীরদ্বীপ উত্তর পাড়া মো. হাছনের ছেলে আক্তার হোসেন (৩৫), শাহপরীর দ্বীপ হাজী পাড়ার কালামিয়ার ছেলে মো. হোসেন (২৮), মুচনী ২৬ নং রোহিঙ্গা শিবিরের বাসিন্দা মৃত আহমদ হোছনের ছেলে জমির হোসেন (৫০), বালুখালী ১৮ নং রোহিঙ্গা শিবিরের বাসিন্দা মৃত বশির আহমদের ছেলে কেফায়াত উল্লাহ (৩০)।

আইনানুগ ব্যবস্থা শেষে ধৃতদের জব্দকৃত মালামালসহ টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছে বিজিবির এই কর্মকর্তা।

আপনার মন্তব্য দিন