বৃষ্টির পানি আটকে মাছ চাষ, জলাবদ্ধতায় জনদুর্ভোগ

প্রতিনিধি,পেকুয়া. কক্সবাজার

কক্সবাজারের পেকুয়ায় বৃষ্টির পানি আটকে রেখে মাছ চাষের কারণে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে দূর্ভোগে পড়েছেন প্রায় দশ হাজার মানুষ।

সরেজমিনে দেখা যায়, পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের মটকাভাঙ্গা, কুম পাড়া, অইর পাড়া ও সোনালী বাজার পাড়া এলাকায় গত এক সপ্তাহের প্রবল বর্ষণ ও পূর্ণিমার জোয়ারের পানিতে প্রায় দুই’শ পরিবার পানি বন্দী হয়ে পড়েছে। এসব এলাকার চলাচলের রাস্তা ও নলকূপ পানিতে তলিয়ে গেছে।

এতে চলাচলে ব্যাঘাত ও সুপেয় পানির তীব্র সংকট দেখা দেয়। ভেঙ্গে পড়েছে স্যানিটেশন ব্যবস্থা। অধিকাংশ টয়লেট এ পানি উঠায় খোলা আকাশের নিচে প্রাকৃতিক কাজ সারতে হচ্ছে সাধারণ মানুষ। এলাকাবাসীকে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জন্য গলা সমান পানি মাড়িয়ে পাশের বাজারে যাচ্ছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মটকাভাঙ্গা এলাকার দক্ষিণ অংশ, অইর পাড়া ও সোনালী বাজার পাড়ার পশ্চিম অংশের পানি নিষ্কাশনের জন্য সোনালী বাজার সংলগ্ন একটি মাত্র স্লুইচ গেইট রয়েছে। বর্তমানে এই স্লুইসগেট আটকে রেখে মাছ চাষ করছেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা।

স্থানীয় বাসিন্দা আবুল কালাম বলেন, প্রতিবছর বর্ষার সময় স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী স্লুইসগেট আটকে মাছ ধরেন। এতে দুর্ভাগে পড়েন তিন গ্রামের প্রায় দশ হাজার মানুষ।

রুপাই খালের কুম পাড়া অংশের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র নাসি মাছ ধরার জন্য বন্ধ করে রেখেছেন সেখানকার প্রভাবশালীরা। এতে রুপাই খাল সংকোচিত হয়ে খালের পানি মানুষের বসতভিটায় উপচে পড়ছে ।

এ ব্যাপারে মগনামা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম বলেন, বৃষ্টির পানি আটকে মাছ চাষের ফলে এলাকাবাসীর দুর্ভোগের খবর পেয়ে আমি ওইসব এলাকা পরিদর্শন করেছি।

পানি নিষ্কাশনের জন্য স্লুইসগেট ও নাসি গুলো খুলে দেওয়া হয়েছে। একইসাথে পানি চলাচলের পথ বন্ধ না করার জন্য জড়িতদের সতর্ক করা হয়েছে।

 

আপনার মন্তব্য দিন