মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান: সেনাবাহিনীর বক্তব্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।

মিয়ানমারে গত বছরের সাধারণ নির্বাচনে ‘ভোট জালিয়াতির’ ঘটনায় দেশটির ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সু চি, রাষ্ট্রপতি এবং জ্যেষ্ঠ নেতাদের আটক করেছে বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনী।

সামরিক বাহিনী পরিচালিত টেলিভিশনে সম্প্রচার করা এক ভিডিও ভাষণে সেনাবাহিনীর সিনিয়র জেনারেল মিং অং হ্লাইং জানিয়েছেন, সশস্ত্র বাহিনীর প্রধানের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ক্ষমতাসীন দলের মুখপাত্র মায়ো নিউনত বলেন, ‘আমি আমাদের জনগণকে বলতে চাই যে তাড়াহুড়া করে সাড়া না দিতে এবং আমি চাই তারা আইন অনুযায়ী কাজ করবে।’

এর আগে সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) সকালে অং সান সু চি, রাষ্ট্রপতি উইন মিনত এবং অন্য শীর্ষ নেতাদের ভোরে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় দেশটিতে এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে সেনাবাহিনী। পাশাপাশি দেশটির বড় শহরগুলোতে টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী।

প্রসঙ্গত, গত বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল এনএলডি নিরঙ্কুশ বিজয় লাভ করে। তবে ওই নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তোলে দেশটির সেনাবাহিনী। এবার সেই অভিযোগেই অভিযান চালিয়ে সু চিসহ এনএলডির শীর্ষ নেতাদের আটক করা হলো।

ওই নির্বাচনে সংঘাতপূর্ণ অঞ্চলের ভোটারদের ভোট বঞ্চিত করা হয়েছে বলে বিভিন্ন মানবাধিকার গোষ্ঠী থেকে সমালোচনা করা হয়। আর সেনাবাহিনী সমর্থিত বিরোধী জোট নির্বাচনে দাবি করে নির্বাচনে ৮ দশমিক ৬ মিলিয়ন ভোট জালিয়াতির ঘটনা ঘটেছে।

 

আপনার মন্তব্য দিন