রাষ্ট্রবিরোধী মামলার আসামিকে নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টা

স্টাফ করেসপনডেন্ট , চকরিয়া।

চকরিয়ায় হারবাং হামিদিয়া দাখিল মাদ্রাসা সুপার নুরুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত ও নাশকতা, নারী নির্যাতন মামলার আসামি মো: খোরশেদ আলমকে নিরাপত্তা কর্মী হিসাবে নিয়োগ দেওয়ার চেষ্ঠা করছে।

তথ্য সূত্রে জানা যায়, খোরশেদ আলমের(২৫) পিতা-মৃত আব্দুস ছালাম, সাং ভাইনাকাটা হারবাং চকরিয়া। তার বিরুদ্ধে ২০১২ সালে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড জড়িত নাশকতা অভিযোগে জিআর-২০, তারিখ ০৯/১২/২০১২ সালে মামলা ও নারী ও ও শিশু নির্যাতন আইনে ২০১৩ সালের আরো একটি মামলা রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পরিচালনা কমিটির এক সদস্য বলেন, দাখিল মাদ্রসার সুপার নুরুল আলম মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ও বাগিনাকে নিয়োগ দেওয়ার জন্য জোর প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এইটা ভাল লক্ষন নয় কারণ তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রেবিরোধী কর্মকাণ্ডসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকার পরও কিভাবে তাকে নিয়োগ দিতে মাদ্রাসা সুপার তৎপরাতা চালাচ্ছে আমার বোধগাম্য নয়।

তিনি আরো বলেন, পরিচালনা কমিটিকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে ম্যানেজ করার চেষ্টা করছে।এই বিষয়টি আমরা আপোষ করব না।

হারবাং হামিদিয়া দাখিল মাদ্রসার পরিচালনা পরিষদের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটনের কাছে মো: খোরশেদ আলমের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে নাশকতা মামলা ও নারী নির্যাতন মামলার ডকুমেন্ট হাতে পেয়েছি। তদন্ত করে যথাাযত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমন গুরুতর অভিযুক্ত ব্যক্তি কোন ভাবে আমি থাকতে মাদ্রসার নিরাপত্তা কর্মী হিসাবে নিয়োগ দিতে পারবে না।

হামিদিয়া দাখিল মাদ্রসার সুপার নুরুল আলম বলেন, ভাগিনা মো: খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড নাশকতা ও নারী নির্যাতন মামলার বিষয়টি শুনেছি। মামলার কপি মাদ্রসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটনের কাছে আছে বলে জেনেছি দেখে আলোচনা সাপক্ষে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন।

আপনার মন্তব্য দিন