রোহিঙ্গা সংকট: ঝুঁকি কমাতে এসেছে ৬.২ মিলিয়ন ইউরো

রোহিঙ্গা সংকট: ঝুঁকি কমাতে  এসেছে ৬.২ মিলিয়ন ইউরো

শরীফ খিয়াম, ঢাকা

কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ এবং নোয়াখালীর ভাসানচরে আশ্রিত রোহিঙ্গাসহ সেখাকার স্থানীয় জনগণের জন্য জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থাকে (ইউএনএইচসিআর) নতুন করে ছয় দশমিক দুই মিলিয়ন ইউরো (প্রায় ৬২ কোটি টাকা) অনুদান দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

বাংলাদেশে ইইউর মানবিক কর্মসূচির দায়িত্বপ্রাপ্ত আনা অরল্যান্ডিনি বলেন, “এই অনুদানের মাধ্যমে শরণার্থীদের, বিশেষ করে যারা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে- তাদের নিরাপত্তা, মর্যাদা ও অবস্থার উন্নতির জন্য পর্যাপ্ত ও অর্থবহ সুরক্ষা নিশ্চিত করা যাবে।”

ইউরোপীয় কমিশনের নাগরিক সুরক্ষা ও মানবিক সহায়তা বিভাগের (একো) মাধ্যমে এই অনুদান এসেছে বলে সোমবার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর বাংলাদেশ।

রোহিঙ্গা শরণার্থী ও তাদের আশ্রয় প্রদানকারী স্থানীয় জনগণের জন্য মানবিক কার্যক্রম যখন ষষ্ঠ বছরে পদার্পণ করেছে উল্লেখ করে বাংলাদেশে ইউএনএইচসিআর-এর প্রতিনিধি ইয়োহানেস ভন ডার ক্লাও বলেন, “কক্সবাজার ও ভাসানচরের শরণার্থী শিবিরগুলোয় ইউএনএইচসিআর-এর কার্যক্রমে ইইউর চলমান সহায়তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।”

মিয়ানমারে সহিংসতা ও নৃশংসতা থেকে পালাতে বাধ্য হওয়ার পাঁচ বছর পর বর্তমানে কক্সবাজারের ঘনবসতিপূর্ণ শিবিরগুলোয় নয় লাখ ১০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা এবং আরো ৩০ হাজার শরণার্থী ভাসানচরে বসবাস করছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেছে ইউএনএইচসিআর।

Related Articles