সাংবাদিক আমান উল্লাহ আমানের নি:শ্বর্ত মুক্তির দাবীতে টেকনাফে সাংবাদিক সংগঠনের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, নিউজ কক্সবাজার ডটকম 

কক্সবাজারের টেকনাফে সাংবাদিক আমান উল্লাহ আমানের নি:শ্বর্ত মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) দুপুর দুইটায় টেকনাফ বাস স্টেশন চত্বরে এই মানববন্ধন  অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটি,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) উপজেলা শাখা, টেকনাফ পৌর প্রেসক্লাব, টিভি জার্নালিস্ট এস্যোসিয়েশন,উপকূলীয় সাংবাদিক ফোরাম, টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ২০০৩ ব্যাচ, সওতুলহেরা সোসাইটিসহ বিভিন্ন সামজিক সংগঠন অংশগ্রহণ করেছেন। 

টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম সাইফির সভাপতিত্বে ও টেকনাফ পৌর প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুস সালামের পরিচালনায় উক্ত মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) টেকনাফ শাখার সভাপতি ও টেকনাফ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, টেকনাফ পল্লী বিদ্যুতের এজিএম আবুল বাশার ইচ্ছাকৃতভাবে লোডশেডিং বাড়িয়েছেন। প্রতিদিন কারণে অকারণে টানা লোডশেডিং ও লাইনে ত্রুটির অজুহাতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রেখে তিনি গ্রাহকদের হয়রানি করেছেন। নতুন সংযোগ স্থাপনে উৎকোচ গ্রহণ এবং তার স্বেচ্ছাচারিতার কাছে উপজেলার ৫০ হাজারেরও বেশি গ্রাহক জিম্মি হয়ে পড়েছেন। শুধু তাই নয়, মিথ্যা অজুহাতে মাত্রাতিরিক্ত লোডশেডিং দিয়ে কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের লেখাপড়ায়ও দারুণ বিঘ্নের সৃষ্টি করছেন এই এজিএম।

এজিএম আবুল বাশার যোগদানের পর উপজেলার গ্রামগুলোতে নিয়মবহির্ভূতভাবে একটানা ২-৩ ঘণ্টা লোডশেডিং দিয়ে আসছেন।  অফিসে ফোন করে মাত্রাতিরিক্ত লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদ করলে  লাইনে কৃত্রিম ত্রুটি সৃষ্টি করে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রেখে নিজের ক্ষমতা জাহির করেন এই এজিএম।  সাংবাদিক আমান উল্লাহ আমান এসবের বিরুদ্ধে রাজপথে সবসময় সোচ্চার ছিলেন। একারণেই পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম আবুল বাশারের রোষানলে পরেন তিনি। তারই নিল নকশা বাস্তবায়ন করলো গতকাল মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণের মাধ্যমে। 

করোনাকালীন সময়ে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধে বিলম্ব ফি মওকুফ করার সরকারী নির্দেশনা থাকলেও  ডিজিএম আবুল বাশার আজাদ সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে গ্রাহকদের কাজ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। 

সভায় আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে দুর্নীতিবাজ ডিজিএমের শাস্তিমূলক বদলি এবং সাংবাদিক আমান উল্লাহ আমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং  নি:শ্বর্ত মুক্তির দাবী করেছেন সাংবাদিক নেতারা। অন্যথায় আরো কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করার হুশিয়ারী দেওয়া হয়। পাশাপাশী একজন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা যাচাই বাচাই না করে জেল হাজতে প্রেরণ করায় টেকনাফ মডেল থানা পুলিশকেও নিন্দা জানানো হয়। এই ধরণের পদক্ষেপ স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাঁধা বলে মনে করেন সাংবাদিক নেতারা। 

এ সময় বক্তব্য রাখেন, টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির উপদেষ্টা দৈনিক পূর্বকোণ প্রতিনিধি হাফেজ মোহাম্মদ কাসেম, সাংবাদিক ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম, (আরটিভি ও আজকের পত্রিকা) টেকনাফ প্রতিনিধি নুরতাজ মোস্তফা শাহিনসা, টেকনাফ পৌর প্রেসক্লাব এর সাধারণ সম্পাদক (যায়যায়দিন) প্রতিনিধি মোঃ আরাফাত সানী, বিএমএসএফ টেকনাফ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও (সময়ের আলো) প্রতিনিধি মোঃ শেখ রাসেল, সদরের ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শাহ আলম মিয়া, এসএসসি ব্যাচ ২০০৩ এর মোহাম্মদ আলম ও মামুন, টেকনাফ গ্রীন এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্ট শাখার সাঃ সম্পাদক নুরুল আমিন, উপকূলী সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি (একুশের সংবাদ) প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন, টেকনাফ সওতুল হেরা সভাপতি মোঃ উল্লাহ রিয়াদ, সাঃ সম্পাদক ইব্রাহীম রাহি,সচেতন নাগরিকের পক্ষে মোহাম্মদ হারুন।

আপনার মন্তব্য দিন