সাবরাং ইউপি নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনলেন সাব্বির আহমেদ 

বার্তা পরিবেশক

সাবরাং ইউনিয়নের ৫নং সাধারণ ওয়ার্ডে পুনরায় নির্বাচনের দাবি করেছেন মেম্বার পদপ্রার্থী সাব্বির আহমদ। 

তিনি এ ব্যাপারে (মঙ্গলবার) বাংলাদেশের  ২১ সেপ্টেম্বর রিটার্নিং অফিসার বরাবরে লিখিত আবেদন দাখিল করেছেন। এতে বেসরকারীভাবে জয়ী ঘোষিত মোঃ শরীফকে বিবাদী করা হয়েছে।

লিখিত আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, বিবাদী একজন আদম পাচারকারী ও মাদক কারবারী এবং টেকনাফ থানায় ৫০০ জনের তালিকা ভূক্ত ইয়াবা গডফাদার। উক্ত বিবাদী তার কালো টাকার জোরে নির্বাচনী দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ, বিজিবি ও নির্বাচনী কাজে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারগণকে বশে এনে নির্বাচনী ফলাফলকে বানচাল করেছে। ভোট গননাকালীন সময়ে বিজিবি সদস্যগণ কর্তৃক একতরফাভাবে বিবাদীকে কেন্দ্রের অভ্যন্তরে রেখে জোর পূর্বক আমাকে বের করে দিয়েছে। পরবতীর্তে উক্ত কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট আগমন করলে তিনি আমাকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেন। নির্বাচনী দায়িত্বপ্রাপ্ত পোলিং অফিসার ও প্রার্থীগণের নির্বাচনী এজেন্ট কর্তৃক ভোট গণনার বিধান থাকলেও একজন পুলিশ অফিসার কর্তৃক অবৈধ ভাবে ভোট গননা করা হয়েছে। ভোট গণনাকালীন আমার নির্বাচনী প্রতীক ফুটবল মার্কায় ভোটের সংখ্যা বেশী পরিলক্ষিত হলে বিবাদীর কারসাজিতে প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক ভোট গননা স্থগিত করে দেয়। পরবতীর্তে প্রিজাইডিং অফিসার, বিজিবি ও পুলিশ অফিসার ভোট কেন্দ্রের বাহিরে গিয়ে গোপন শলা পরামর্শের মাধ্যমে ফলাফল বানচাল করে বিবাদীকে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়। নির্বাচনী ফলাফল শীটে প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক আমার সহি স্বাক্ষর গ্রহণ করেন নাই। সীমাহীন কারচুপির মাধ্যমে বিবাদীকে জয়ী ঘোষনা করার পর মধ্য রাতে বিবাদী তার সন্ত্রাসী বাহিনীসহ আমার কর্মী হামিদ হোছন ও মোহাম্মদ ইলিয়াছ এর বসত বাড়ীর সামনে এসে ফাঁকা গুলিবর্ষন করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে। আজ তাহার তথাকথিত নির্বাচনী বিজয় সভায় আমার কর্মী সমর্থকদের নাম ধরে বিভিন্ন ধরনের হুমকী—ধমকী ও ভয়—ভীতি প্রদর্শন করেছে। উল্লেখ্য যে, বিগত ২০১৬ইং সনের নির্বাচনেও বিবাদী তাহার কালো টাকার জোরে আমার বিজয় ছিনিয়ে নিয়ে এমন ধরনের তান্ডব চালিয়েছিল।

এমতাবস্থায় সার্বিক দিক বিবেচনা করে ফলাফল বাতিল ঘোষনা পূর্বক নির্বাচনী ব্যালট পেপার পূণঃ গণনা অথবা ৫ নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্যপদে পূণঃ নির্বাচন ঘোষনার নিমিত্তে মহোদয় সমীপে অত্র আবেদন পেশ করিলাম। 

আপনার মন্তব্য দিন