কক্সবাজারের হিমছড়িতে গড়ে উঠবে পরিকল্পিত ও নান্দনিক হাউজিং প্রকল্প : কউককে সাধুবাদ

স্টাফ করেসপনডেন্ট ।।

কক্সবাজারের রামু হিমছড়ি দৃষ্টিনন্দন আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক)। এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষ। জানা গেছে, প্রত্যেক নাগরিকের জন্য নিরাপদ, মানসম্মত ও সাশ্রয়ী মূল্যে বাসস্থানের ব্যবস্থা করতেও সরকার প্রতিবছর বাজেট বরাদ্দ বৃদ্ধি করছে আবাসন খাতে।

শহর ও শহরতলিতে নাগরিকদের আবাসন সমস্যা সমাধানে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও এর অধীন দপ্তর বা সংস্থাগুলো। এর অংশ হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ‘সবার জন্য আবাসন, কেউ থাকবে না গৃহহীন’ এবং টেকসই উন্নয়ন অভিলক্ষ্য সামনে রেখে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সারা দেশে অঞ্চলভিত্তিক উন্নয়ন মহাপরিকল্পনা প্রণয়ন, হালনাগাদকরণ ও সমন্বয় করে যাচ্ছে। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা, ‘গ্রামের মানুষকে শহরের সুবিধা প্রদান করা’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সারা দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলার মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে এই মন্ত্রণালয়।

এ লক্ষ্যে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ হিমছড়িতে মনোরম পরিবেশে পরিকল্পিত ও নান্দনিক হাউজিং প্রকল্প গড়ে তুলতে ১৫৮.৮৬ একর ভূমির বিষয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে অনাপত্তি চেয়েছেন। জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন ও উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে.কর্ণেল (অবঃ) উক্ত এলাকাটি পরিদর্শন করেছেন। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, প্রকল্প বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ যৌথ ভাবে কাজ করছেন।

ইতোমধ্যে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ প্রকল্প এলাকায় জরিপ কাজ শুরু করেছেন। এদিকে, হিমছড়িতে কউকের গৃহিত পরিকল্পিত ও নান্দনিক হাউজিং প্রকল্প যাতে গড়ে উঠতে না পারে সেই লক্ষ্যে সরকার বিরোধী একটি চক্র অপতৎপরতা শুরু করেছে। সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডে বাধাগ্রস্ত করতে নানামুখি ষড়যন্ত্রের জাল বুনতে শুরু করেছে ওই চক্রটি। তবে, কউক এবিষয়ে সব সময়ই সজাগ বলে জানিয়েছেন।

সাংবাদিক শাহজাহান চৌধুরী শাহীন বলেন, মানুষের কাছে জীবনের পর যে বিষয়টি অতি মূল্যবান, তা হল একটা নিরাপদ আবাসস্থল। প্রায় সব মানুষই চায় নিরাপদভাবে বসবাস করতে। আর সংসারে কেবল ভালোবাসাই নয়, মাথা গোঁজার মতো একটা ভালো বাসা’ও চাই। মানুষের এই চাহিদার গুরুত্ব বিবেচনা করে কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষ (কউক) কতৃক গৃহিত হিমছড়িতে আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলার উদ্যোগ সত্যি প্রশংসার দাবী রাখে। এটা দ্রুত বাস্তবায়ন হোক প্রত্যাশা সকলের।

কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষ (কউক) চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল ফোরকান আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা, ‘গ্রামের মানুষকে শহরের সুবিধা প্রদান করা’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে হিমছড়িতে আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সেই লক্ষ্যে ধারাবাহিক প্রক্রিয়া চলমান।

আপনার মন্তব্য দিন