কক্সবাজারে আবাসিক হোটেলে তুর্কি নাগরিকের লাশ : করোনার নমুনা সংগ্রহ

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন।।

কক্সবাজার শহরের কলাতলী এলাকার একটি আবাসিক হোটেল থেকে মিসোস ডুরাল বে (৫০) নামের এক তুরস্কের নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার করেছে কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ।

প্রাথমিক ভাবে স্ট্রোকজনিত কারণে এই তুর্কির মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কিনা জানতে তার করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। মরদেহটি একটি ফ্রিজার এ্যাম্বুলেন্সে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ রোববার (৩ মে) রাত ৮ টার দিকে কলাতলীর ‘সুইট সাদাফ’ আবাসিক হোটেল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে।
ডুরাল বে নামের ওই বিদেশি নাগরিক শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনে অধীনে উখিয়ার রোহিঙ্গা শিবিরে ফিল্ড হাসপাতালে আইটি কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

দীর্ঘ প্রায় ৪ মাস ধরে তিনি রোহিঙ্গা শিবিরে কাজ করছেন। ওই সময় থেকেই তিনি কক্সবাজার শহরের কলাতলী এলাকার আবাসিক হোটেল ‘সুইট সাদাফে’র ৭০২ কক্ষে ভাড়া থাকতেন।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ খাইরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোববার রাত ৮ টার দিকে তুরস্কের নাগরিক ওই বিদেশির মরদেহ হোটেল কক্ষ থেকে উদ্ধার করা হয়। তবে কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

তার মতে, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, স্ট্রোকজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে। পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে মরদেহ রাখা হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ও বিশেষায়িত জরুরি বিভাগের প্রধান ডা. শাহীন মো. আবদুর রহমান জানান, পুলিশ হাসপাতালে মরদেহটি নিয়ে এসেছে।

করোনা পরীক্ষার জন্য মরদেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগামিকাল সোমবার করোনা পরীক্ষা ও অন্য পরীক্ষা নিরীক্ষার পর বিস্তারিত জানা যাবে।

ডা. শাহীন আরো জানান, মরদেহটি হাসপাতালে মর্গের কাছাকাছি একটি ফ্রিজার এ্যাম্বুলেন্সে রাখা হয়েছে। পরীক্ষার পর মরদেহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

তবে তিনিও জানান, কী কারণে ওই বিদেশির মৃত্যু হয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার ( আরআরআরসি) এবং হোটেল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আপনার মন্তব্য দিন