দর্শক ফিরতে যাচ্ছে স্টেডিয়ামে

স্পোর্টস ডেস্ক

করোনাভাইরাসের স্থবিরতা কাটিয়ে ক্রীড়াঙ্গন সীমিত পরিসরে চালু হলেও কোন দেশেই দর্শকদের স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার অনুমতি দেওয়া হচ্ছেনা। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতেই এমন সতর্কতা। তবে সেই সীমাবদ্ধতাকে পেছনে ফেলে স্টেডিয়ামে দর্শক ঢোকার অনুমতি দিতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।

আগামী মাস থেকে অস্ট্রেলিয়ার স্টেডিয়ামগুলোতে সর্বোচ্চ ১০ হাজার সমর্থকের প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। মরিসন জানিয়েছেন এই অনুমতি শুধুমাত্র সেসব স্টেডিয়ামকেই দেয়া হবে যেগুলোর ধারণক্ষমতা ৪০ হাজার কিংবা তার কম। এখনই মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড কিংবা এডিলেড ওভালের মত বড় স্টেডিয়ামগুলোকে খুলে দেবার বিষয়টি তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন।

ভেন্যুর ধারণক্ষমতার ২৫ শতাংশের মধ্যে দর্শকের উপস্থিতি সীমিত রাখতে হবে। প্রত্যেক্যেই টিকিট কেটে সামাজিক দূরত্ব মেনে নির্দিষ্ট আসনে বসতে হবে। এ সম্পর্কে স্থানীয় গণমাধ্যমে মরিসন বলেছেন, ‘আমরা তৃতীয় ধাপের দিকে এগুচ্ছি। করোনা সংক্রমনের হার অনেকটাই কমে যাওয়ায় আমরা অপেক্ষাকৃত ছোট স্টেডিয়ামগুলোর ব্যপারে এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি।

এই মুহূর্তে বড় স্টেডিয়ামগুলোতে বেশী সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি শতভাগ মানা সম্ভব নয়। সে কারণেই ঐসব স্টেডিয়ামগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। বিশেষ করে এসব ভেন্যুতে যাতায়াতের ক্ষেত্রে গণপরিবহনের বিষয়টিও মাথায় রাখতে হচ্ছে। এ কারণেই মধ্যম সারির এরিনা যেমন ক্যানবেরা স্টেডিয়াম, মেলবোর্নের এএএমআই পার্কে আগামী ৩ জুলাই থেকে সুপার রাগবি শুরু হতে যাচ্ছে।

করোনাভাইরাসের কারণে অস্ট্রেলিয়ার সব ধরনের ক্রীড়া আসরে মধ্য মার্চ থেকে দর্শকের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়। তবে এরইমধ্যেই অস্ট্রেলিয়া কোভিড-১৯ বেশ ভালভাবেই নিয়ন্ত্রনে এনে ফেলেছে।আগামী মাস থেকে অস্ট্রেলিয়ার স্টেডিয়ামগুলোতে সর্বোচ্চ ১০ হাজার সমর্থকের প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

মরিসন জানিয়েছেন এই অনুমতি শুধুমাত্র সেসব স্টেডিয়ামকেই দেয়া হবে যেগুলোর ধারনক্ষমতা ৪০ হাজার কিংবা তার কম। এখনই মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড কিংবা এডিলেড ওভালের মত বড় স্টেডিয়ামগুলোকে খুলে দেবার বিষয়টি তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা তৃতীয় ধাপের দিকে এগুচ্ছি। করোনা সংক্রমনের হার অনেকটাই কমে যাওয়ায় আমরা অপেক্ষাকৃত ছোট স্টেডিয়ামগুলোর ব্যপারে এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি। এটা এমন একটি বিষয় যা সরাসরি ঘটে যাওয়া বা মানিয় নেয়া সম্ভব না। এক্ষেত্রে অনেক চিন্তাভাবনা করেই এসব করতে হয়েছে।’

আপনার মন্তব্য দিন