টেকনাফ বাহারছড়ায় ভূমিদস্যুদের থাবায় একনারীর কৃষি জমি!

টেকনাফ সংবাদদাতা।।

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর লখালী এলাকায় একনারীর ক্রয়কৃত জমি জোরপুর্বক দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় একটি ভুমিদস্যু চক্র। বৃহস্পতিবারও জোরপুবর্ক জমি দখলে নিয়ে ধানের চারা রোপনের দুইদফা চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ।
বুধবার ও মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ দু’দফা অভিযান চালায়। এসময় কোদালসহ কৃষি উপকরণ জব্দ করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালেও জোরপুর্বক ঊান রোপনের চেস্টা চালালে জমির মালিক পক্ষের লোকজন ভুমিূস্যুূের নিবৃত্ত করে।
জানা গেছে, রাজধানীর পুর্ব রায়ের বাজার এলাকার ফারজানা ইউছুপ (স্বামী -আসিফ ইউছুপ।১১৩/৯,পুর্ব
রায়ের বাজার, ঢাকা)। নামের একজন নারী ২০০৯ সালে টেকনাফ বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শীলখালী এলাকার বোদা গাজীর ছেলে মোহাম্মদ হোছন নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে রেজিঃ কবলামুলে ৯৪ শতক জমি ক্রয় করেন। সেই সময় থেকে ক্রেতা ফারজানা ইউছুপের দখল ও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
অভিযোগ পাওয়া গেছে, বাহারছড়া ৩ নং ওয়ার্ডের উত্তর শীল খালী এলাকার বাসিন্দা মগবুল আহম্মেদ, আবু সাহেদ,জয়নাল উদ্দিন, কামাল উদ্দিন, নুরুল হাকিমসহ একদল ভুমিদস্যু ওই নারীর জমিখানা দখলের পায়তারা চালিয়ে আসছিল। এঘটনায় জমির ক্রয় সুত্রে মালিক ফারজানা ইউছুপের পক্ষে ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগও দেয়া হয়।
সুত্রে আরো জানা গেছে, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে উভয় পক্ষকে নিয়ে বৈঠকও হয়েছে। তবে জমির স্বপক্ষে কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারায় মগবুল আহম্মদগংকে ওই জমিতে প্রতি বন্ধকতা সৃষ্টি না করতে নির্দেশ দেয়া হয়।
এদিকে, গত মঙ্গলবার ও বুধবার দুই দফা জমি দখল করে সেখানে জোরপুর্বক ধানের চারা (রোয়া) বপনের চেষ্টা করে। খবর পেয়ে বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই লিটনের নেতৃত্ব একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে ভুমিদস্যুদের চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন এবং দখলদারদেরকে ভৎর্সনা করে সেখান থেকে সরিয়ে দেয়।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে ফারজানা ইউছুপের মালিকানাধীন জমিতে ধান রোপনের চেষ্টা করছিল একদল ব্যক্তি। খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যান জমির মালিক ফারজানা ইউছুপের সাথে বায়নানামা সুত্রে মালিক পক্ষ স্থানীয় আবুল বশরসহ লোকজন। তারা তাদের জমিতে ধান রোপনে বাধা দেয় এবং ভুমিদস্যুদের চেষ্টা ব্যর্থ ও তাদের নিবৃত করা হয়।
জমির মালিক ফারজানা ইউছুপ জানান,বাহারছড়া উত্তর শীলখালী এলাকার মুসা আলী ছেলে মো. হোছনের কাছ থেকে ৯৪ শতক জমি গত ৮/৭/২০০৯ সালে ১৬৪০ নং কবলা দলিলমুলে রেজিষ্ট্রি নেন তিনি। শীলখালী মৌজার আরএস জমাবন্দি ৫৩৯/২৩৯ খতিয়ান, বিএস খতিয়ান নং- ৮৭৯, বিএস দাগ নং-৩০১৮, ৩০১৯, ৩০২২, ৩০২৩,নিদৃষ্ট ট্রেস ম্যাপও রয়েছে।
ফারজানা ইউছুপ জানান, এটা আমার নামে কেনা জমি। এই জমিটি এখন দখলের জন্য কয়েকজন ব্যক্তি দখল করে ধান রোপনের অপচেষ্টা করছে। এই ব্যাপারে আমি উর্ধবতন পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এ বিষয়ে বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সুত্র বলেন, অভিযোগের বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে। খালি জায়গা পেলেই সেখানে দখল করতে চাইবে, ধান রোপনের চেষ্টা করবে? অবশ্যই এবিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো।

আপনার মন্তব্য দিন